ল্যাভেন্ডার তেলের উপকারিতা - Benefits of lavender Oil
lavender

ল্যাভেন্ডার তেলের উপকারিতা - Benefits of lavender Oil

ল্যাভেন্ডার হচ্ছে Lamiaceae পরিবারের সপুষ্পক উদ্ভিদের ৩৯টি প্রজাতির একটি গণের নাম। এটি বর্ষজীবী গুল্ম। 

ইংরেজি নাম: lavender

বৈজ্ঞানিক নাম: Lavandula

উপকারিতা

ত্বক এবং চুলে ল্যাভেন্ডার অ্যাসেনশিয়াল অয়েল কিন্তু বহুকাল থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে। ত্বকের যত্ন হোক কিংবা চুলের যত্ন কোন ক্ষেত্রেই জুড়ি নেই এই ল্যাভেন্ডার অয়েলের। শুধুমাত্র যে এটার ঘ্রাণ অনেক বেশি ভালো তাই নয়। ঘ্রাণের সাথে সাথে এটির কার্যকারিতাও কিন্তু অনেক বেশি। ত্বকের নানাধরনের সমস্যার সমাধান করে থাকে এই অ্যাসেনশিয়াল অয়েলটি। ব্রনের সমস্যা, লার্জ-পোরস, শুষ্কভাব এমন নানা ধরনের সমাধান কিন্তু পাওয়া যায় ল্যাভেন্ডার অয়েল-এই। হেয়ার গ্রোথ এবং হেলদি স্ক্যাল্পের জন্যেও ল্যাভেন্ডার অয়েলের রয়েছে বহু ব্যবহার। তাই আজ আমি আপনাদের সাথে ল্যাভেন্ডার অয়েলের কিছু গুণাবলি শেয়ার করবো। নিঃসন্দেহে ত্বক এবং চুল ভালো রাখতে এই অয়েলটির কোন ত্রুটি নেই। তাহলে আসুন জেনে নেই, ত্বক এবং চুলের যত্নে অ্যাসেনশিয়াল অয়েলের কিছু ব্যবহার এবং উপকারিতা। তাহলে জেনে নেয়া যাক ল্যাভেন্ডার অয়েলের গুণাগুণ এবং এর কিছু ব্যবহার-

জয়েন্টের ব্যথা থেকে মুক্তি দেয়

ল্যাভেন্ডার তেলের ব্যবহার জয়েন্টে ব্যথার জন্য উপকারী। এগুলি ছাড়াও এটি স্নায়ুর ব্যথা কমিয়ে দেয় কারণ এতে ব্যথা উপশমের সম্পত্তি রয়েছে। আপনি যদি জয়েন্টে ব্যথায় ভুগছেন তবে ল্যাভেন্ডার অয়েল ব্যবহার করা উচিত।

ভালোভাবে ঘুম আনতে কাজ করে

যারা রাতে ঠিকভাবে ঘুমাতে পারেন না, তাদের জন্য ঘুমের ওষুধ গ্রহণের আগে ল্যাভেন্ডার অয়েল ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে থাকেন অনেক হারবাল চিকিৎসক। ল্যাভেন্ডার অয়েল নারিকেল তেলের সাথে মিশিয়ে মাথায় আলতোভাবে ম্যাসাজ করে কিংবা কয়েক ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অয়েল নিজের বালিশে মাখিয়ে নিয়ে হবে। ল্যাভেন্ডারের প্রশান্তিদায়ক গন্ধ মনের সাথে শরীরকে রিল্যাক্স করতে কাজ করে। ফলে দ্রুত ঘুম চলে আসে এবং ঘুম ভালো হওয়।

পেশীর ব্যথা কমায়

শরীরচর্চার সময় অসাবধানতায় পেশীতে টান পড়লে দারুণ ভুগতে হয়। শুধু পেশীর টান নয়, সাঁতার কাটলে, সাইকেল চালালে কিংবা অনেকদিন পর শরীরচর্চা করলে পেশীতে ব্যথাভাব দেখা দেয়। এই সমস্যা কমাতে ল্যাভেন্ডার অয়েলের ম্যাসাজ ভালো কাজ করবে।

আঘাত দ্রুত সারাতে কাজ করে

অল্টারনেটিভ মেডিসিনের এক জার্নাল জানাচ্ছে, ত্বকের আঘাতপ্রাপ্ত স্থানে সমস্যা মোকাবিলার ক্ষেত্রেও এই তেল এর অনেকখানি ভূমিকা রয়েছে। বিজ্ঞানীরা গবেষণাগারে ইঁদুরের উপর পভিডন আয়োডিন সলিউশন, ল্যাভেন্ডার অয়েল ও স্যালাইন সলিউশন ব্যবহার করে দেখেছে, ল্যাভেন্ডার অয়েল থাকায় এই মিশ্রণটি আঘাত দ্রুত সারিয়ে তুলতে কাজ করে।

ব্রণ কমাতে সাহায্য করে

শুনতে অবাক লাগলেও ল্যাভেন্ডারের অ্যারোমা অয়েল কিন্তু ব্রণর বিরুদ্ধে ত্বকের প্রতিরোধ গড়ে তুলতে সাহায্য করে, ব্রণ কমায়! বন্ধ রোমকূপের মুখ খুলে দেয়, প্রদাহ কমায় এবং ব্রণর ব্যাকটেরিয়া নির্মূল করে ল্যাভেন্ডার অয়েল। ব্রণর জন্য ল্যাভেন্ডার অয়েল কাজে লাগানোর সবচেয়ে ভালো উপায় হল নারকেল তেল বা আর্গান অয়েলের মতো কোনও কেরিয়ার অয়েলের সঙ্গে মিশিয়ে নেওয়া। দুটো তেল একসঙ্গে মিশিয়ে নিয়ে তুলো দিয়ে পরিষ্কার মুখে লাগান। নিয়মিত ব্যবহার করলে দেখবেন ব্রণর সংখ্যা কত কমে গেছে, নতুন ব্রণও বেরোচ্ছে না!

ত্বক উজ্জ্বল করে তোলে

মুখে হাইপারপিগমেন্টেশন, কালো দাগ আর নিষ্প্রাণ অনুজ্জ্বল ত্বক দেখতে দেখতে ক্লান্ত? ত্বককে দিন ল্যাভেন্ডারের আদর! অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি গুণের কারণে ল্যাভেন্ডার ত্বকের কালো দাগছোপ আর বিবর্ণভাব কমাতে সাহায্য করে। ত্বকের কোথাও ছোপছোপভাব বা লালচেভাব দেখা দিলে তা কমাতেও উপকারী ল্যাভেন্ডার।

কমায় মানসিক চাপ ও অবসাদ

ল্যাভেন্ডার অয়েল সবচেয়ে বেশি ব্যবহার করা হয় অবসাদ, স্ট্রেস বা মানসিক চাপ ও দুশ্চিন্তা কমানোর ক্ষেত্রে। ল্যাভেন্ডার অয়েলের আরামদায়ক ও সুমিষ্ট গন্ধ মনকে শান্ত করতে কাজ করে। এদিকে মেডিকেল জার্নাল বলছে, যারা সাময়িক সময়ের অবসাদে ভুগছেন, তাদের ক্ষেত্রে এই তেল অধিকভাবে কার্যকরী। পাশাপাশি ছোটখাটো ঘটনাতে যারা নার্ভাস হয়ে পড়েন, তাদের নার্ভাসনেস কমাতেও ল্যাভেন্ডার অয়েল ভালো কাজ করবে।

সারাবে ফাংগাল ইনফেকশন

মেডিকেল মাইক্রোবায়োলজির এক জার্নাল জানাচ্ছে, এই ল্যাভেন্ডার অয়েল ছত্রাকজনিত যেকোনো রোগ সারাতে অত্যন্ত কার্যকরী একটি উপাদান হিসেবে কাজ করে। মানবদেহের শরীরে বিশেষত আমাদের ত্বকে ছত্রাকজনিত যে ইনফেকশনের সৃষ্টি হয়, তা সারাতে এই তেল যথেষ্ট কার্যকরী। অ্যান্টি-ফাংগাল উপাদান সমৃদ্ধ ল্যাভেন্ডার অয়েল শুধুমাত্র ছত্রাকের আক্রমণ কমায় না, সাথে ফাংগাল ইনফেকশন প্রতিরোধে ত্বকে প্রতিরোধমূলক অবস্থা গড়ে তোলে।