বাংলার তাজমহল ভ্রমণ - Banglar Taj Mahal Tour
Banglar Taj Mahal

বাংলার তাজমহল ভ্রমণ, সোনারগাঁও, নারায়ণগঞ্জ

Banglar Taj Mahal Tour Guide

ভারতে অবস্থিত আগ্রার তাজমহল দেখার ইচ্চা অনেকের থাকলেও সবার পক্ষে যাওয়া সম্ভব হয় না। তবে আগ্রার তাজমহল আপনি কিন্তু বাংলাদেশে দেখতে পারেন। ভ্রমণপিপাসু মানুষের দৃষ্টির পরিতৃপ্তির জন্য বাংলার ইতিহাসের প্রাচীন রাজধানী সোনারগাঁয়ের নির্মিত হয়েছে ভারতের আগ্রার তাজমহলের আদলে বাংলার তাজমহল। 

প্রাচীন যুগ ও মধ্যযুগে পৃথিবীতে নির্মিত অতি আশ্চর্যের সাতটি জিনিসের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিল মিসরের রাজা বাদশাহদের মমি ও ভারতের মোগল সম্রাট শাহজাহানের স্ত্রী মমতাজ বেগমের স্মৃতির উদ্দেশ্যে নির্মিত আগ্রার তাজমহল। মমি আর তাজমহলের আদলে এ স্থাপনাগুলো নির্মাণ করেছেন চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব মুক্তিযোদ্ধা আহসানউল্লাহ মনি নিজ গ্রাম পেরাবতে। 

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা থেকে ১০ মাইল পূর্বে পেরাব, সোনারগাঁয়ে অবস্থিত। এটি প্রকৃত তাজমহলের (ভারতের আগ্রায় অবস্থিত একটি মুঘল নিদর্শন) একটি হুবহু নকল বা রেপ্লিকা। এটি ব্যক্তিমালিকানাধীন এবং তথ্যানুসারে এটি তৈরি করতে মাত্র ৫ বছর এবং USD ৫৮ মিলিয়ন খরচ হয়েছে। বাংলার তাজমহল নামে পরিচিত এটি।

বাংলার তাজমহল

ঢাকা থেকে মাত্র ২৫ কিলোমিটার দূরত্বে সোনারগাঁওয়ে অবস্থিত এটি। ভারতের আগ্রায় অবস্থিত তাজমহলের অবিকল প্রতিরূপ এটি।

প্রায় ৫ বছর ধরে এর নির্মাণকাজ চলেছে। প্রায় ১৮ বিঘা জিমির উপর নির্মাণ করা হয়েছে এই তাজমহলটি। এর আশেপাশে ৫২ বিঘা আছে পর্যটনের জন্য। যেখানে দেখা মিলবে প্রাকৃতিক পরিবেশ আর নাম না জানা হাজারও পাখির কিচিরমিচির। অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে এই তাজমহলটি।

এই তাজমহলটি গড়ে তোলা হয়েছে ব্যক্তিমালিকানায়। শিল্পপতি চলচ্চিত্রকার আহসানউল্লাহ মনি বাংলার তাজমহলের নির্মাতা। এই তাজমহলে ব্যবহার করা হয়েছে বিদেশি উপকরণ যেমন ১৭২টি কৃত্রিম ডায়মন্ড।

আরও ব্যবহার করা হয়েছে অত্যাধুনিক সব প্রযুক্তি। এর নির্মাণ কাজে ৬ জন টেকনিশিয়ান নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল। আগ্রার তাজমহলকে অনুকরণ করে নির্মাণ করায় নির্মাতাকে বেশ কয়েকবার ভারতে যেতে হয়েছিল।

বাংলার তাজমহল ২০০৮ সালে উদ্বোধন হয়। পর্যটকদের জন্য এখানে প্রবেশের আগে চমৎকার ১০টি ঝরনা আছে যা মুগ্ধ হয়ে দেখার মতোই। এছাড়াও তাজমহলের আশেপাশে ফুলের বাগান আর নিরিবিলিতে বসার স্থান খুঁজে পাবেন।

তাজমহলের ভেতরে দারুণ সব পাথর দিয়ে কারুকার্য করা। এর ভেতরেই আহসানউল্লাহ্ মনি ও তার স্ত্রী রাজিয়া দু’জনের কবরস্থান সংরক্ষিত আছে। এতেও আগ্রার তাজমহলের মতোই চার কোণে চারটি বড় মিনার দেখতে পাবেন।

এছাড়াও তাজমহলের ভেতরে গেলে দেখতে পাবেন ‘রাজমনি ফিল্ম সিটি স্টুডিও’। এর বাইরে আছে ‘রাজমনি ফিল্ম সিটি রেস্তোরা’। একইসঙ্গে খাবারের দোকান, হোটেল ও আবাসিক ভবন খুঁজে পাবেন সেখানে।

আরও আছে জামদানি শাড়ির দোকান, হস্তশিল্প সামগ্রী, মাটির গয়নাসহ আরও অন্যান্য পণ্য সামগ্রীর দোকান। এর আশেপাশে আছে বিভিন্ন পিকনিক স্পট। চাইলে সেসব স্থান থেকেও ঘুরে আসতে পারেন।

কীভাবে যাবেন বাংলার তাজমহল?

ঢাকা থেকে যেতে হলে ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক দিয়ে ভৈরব, নরসিংদী, কিশোরগঞ্জগামী যে কোনো বাসে উঠতে হবে। এরপর বরপা বাসস্ট্যান্ডে নামতে হবে। ভাড়া পড়বে ২০-২৫ টাকা। সেখান থেকে সিএনজি বা স্কুটারে জনপ্রতি ১০ টাকা ভাড়ায় পৌঁছে যেতে পারবেন তাজমহলে।

এছাড়াও ঢাকা থেকে আরেক রুটে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক হয়ে কুমিল্লা, দাউদকান্দি অথবা সোনারগাঁগামী যে কোনো গাড়িতে চড়ে মদনপুর বাসস্ট্যান্ডে যেতে পারেন। ভাড়া পড়বে ২০ টাকা। সেখান থেকে সিএনজি বা স্কুটারে জনপ্রতি ২৫-৩০ টাকা ভাড়ায় পৌঁছে যাবেন তাজমহলে।

প্রবেশমূল্য:

বাংলার তাজমহলের টিকিট জনপ্রতি ১৫০ টাকা। গাড়ি পার্কিংয়ে খরচ হবে ২০ টাকা।

সময়সূচী:

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা থাকে বাংলার তাজমহল।

খৈয়াছড়া ঝর্ণা-Khoiyachora Waterfal
বঙ্গবন্ধু সাফারী পার্ক, গাজীপুর-Bangabandhu Safari Park,Gazipur
অঙ্গনা রিসোর্ট-Angana Resort
রাজেন্দ্র ইকো রিসোর্ট-Rajendra Eco Resort
জাফলং-Jaflong
লোভাছড়া-lovachara
ঢাকার আবাসিক হোটেল তালিকা, নাম, মোবাইল নাম্বার, ঠিকানা
সোনার বাংলা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী-Sonar Bangla Express train schedule
যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩-Schedule of Jamuna Express ২০২৪
কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩-Kurigram Express Train ২০২৪