কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩-Kalni Express train schedule 2023
Kalni Express train schedule

কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ২০২৩-Kalni Express train schedule 2023

কালনী এক্সপ্রেস হচ্ছে বাংলাদেশের একটি আন্তঃনগর ট্রেন যাত্রীবাহী ট্রেন যা ঢাকা জেলার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন ও সিলেট জেলার সিলেট রেলওয়ে স্টেশনের মধ্যে চলাচল করে। বাংলাদেশ রেলওয়ের অধীনে ঢাকা–সিলেট রুটে কালনী এক্সপ্রেসকে বিরতিহীন সেবা প্রদানের জন্য সচল করা হলেও এটা তার মর্যাদা ধরে রাখতে পারেনি। এটি ২০১২ সালের ১৫ই মে উদ্বোধন করা হয়। এই ট্রেন বর্তমানে ৩টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কোচসহ চীনা ১২টি কোচ নিয়ে যাত্রা করে। ট্রেন নং ৭৭৩/৭৭৪।

কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী

কালনি এক্সপ্রেস ট্রেনটি সপ্তাহে ৬ দিন এটির পরিষেবা পরিচালনা করে। কালনী এক্সপ্রেস (ট্রেন নং – ৭৭৩) ঢাকা থেকে বিকাল ০৪:৪৪ টায় শুরু হয় এবং সিলেটে রাত ১০:৪৫ এ পৌঁছায়। 

অন্যদিকে, এটি (ট্রেন কোড – ৭৭৪) সিলেট থেকে সকাল ০৭:০০ টায় শুরু হয় এবং ঢাকায় রাত ০১:৫৫  এ পৌঁছায়। শুক্রবার ঢাকা ও সিলেটের উভয় দিক থেকে বন্ধ থাকে। এর গন্তব্যে পৌঁছাতে প্রায় ৬ ঘন্টা ৪৫ মিনিট সময় লাগে। নীচের টেবিলটি অনুসরণ করে, যে কেউ কালনি এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী সহজেই পেতে পারেন।

স্টেশনের নাম
ছাড়ায় সময়
পৌছানোর সময়
ছুটির দিন
ঢাকা টু সিলেট
বিকাল ০৪:৪৪রাত ১০:৪৫শুক্রবার
সিলেট টু ঢাকা
সকাল ০৭:০০রাত ০১:৫৫শুক্রবার

বাংলাদেশ রেলওয়ে ট্রেনের সময়সূচী ২০২২

কালনি এক্সপ্রেস ট্রেন যাত্রাবিরতি

কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনটি ঢাকা থেকে সিলেট যাওয়ার সময় কয়েকটি স্টেশনে বিরতি নেয়। কালনী এক্সপ্রেসের যাত্রাবিরতি স্টেশনগুলি হল:

নরসিংদী

ভৈরববাজার

আজমপুর

শায়েস্তাগঞ্জ

শ্রীমঙ্গল

শমসেরনগর

কুলাউড়া

মাইজগাঁও

কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা

বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ সাধারণত গন্তব্যে দূরত্ব অনুযায়ী ভাড়া নির্ধারিত করে থাকে। কালনী এক্সপ্রেস ট্রেনটির 6 টি আসন বিন্যাস আছে । এই ৬ টি আসনের টিকিটের মূল্য পৃথকভাবে একটি টেবিলের মাধ্যমে আমরা আপনাদের সামনে তুলে ধরছি।

আসন বিভাগ
টিকেটের মূল্য (১৫% ভ্যাট) 
শোভন চেয়ার
৩২০টাকা
প্রথম সিট
৪২৫ টাকা
প্রথম বার্থ
৬৪০ াকা
স্নিগ্ধা
৬১০ টাকা
এসি সিট
৭৩৬ টাকা
এসি বার্থ
১০৯৯ টাকা

ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ ট্রেনের সময়সূচী

অনলাইনে টিকেট কাটার নতুন নিয়ম

ই-টিকিটিং সিস্টেমে টিকেট কেনার নতুন পদ্ধতি সম্পর্কে জানিয়েছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। সেক্ষেত্রে রেলওয়ের ওয়েবসাইটে একবার রেজিস্ট্রেশন করলেই চলবে। 

রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া

টিকিট কাটতে অবশ্যই একবার যাত্রীদের রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। সে জন্য প্রথমে www.eticket.railway.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।

সেখানে ওয়েবসাইটটির নিচের দিকে Registration বাটনে ক্লিক করতে হবে। এরপর Create an Account নামের নতুন একটি Page আসবে। এখানে Personal Information এর সংশ্লিষ্ট ঘরগুলো প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে পূরণ করে Security code ঘরের পাশে দেখানো Security Code দিয়ে পূরণ করে Register বাটনে ক্লিক করতে হবে।

সব তথ্য সঠিক থাকলে Registration Successful নামে নতুন একটি Page আসবে।

ই-টিকেটিং সিস্টেম থেকে তাৎক্ষণিকভাবে আপনার দেয়া ই-মেইলে Bangladesh Railway থেকে একটি মেইল পাঠানো হবে।

Bangladesh Railway থেকে আসা মেইলটি খুলে সেখানে মেসেজে থাকা Click লিঙ্কে ক্লিক করতে হবে। এরপর যাত্রীর Registration সম্পন্ন হবে।

টিকিট কাটার প্রক্রিয়া

রেজিস্ট্রেশন শেষ হওয়ার পর যাত্রীরা টিকিট কাটতে পারবেন। এ জন্য তাকে প্রথমে www.eticket.railway.gov.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করতে হবে।

সেখানে থাকা Log in প্যানেলে ই-মেইল ঠিকানা, পাসওয়ার্ড এবং সিকিউরিটি কোড পূরণ করতে হবে।

পরে যে Page আসবে তাতে Purchase ticket বাটনে ক্লিক করতে হবে। এখানে যাত্রীকে পূরণ করতে হবে তিনি কোন তারিখের টিকিট কাটতে চান, কোন স্টেশন থেকে কোন স্টেশন পর্যন্ত, ট্রেনের নাম, শ্রেণি, টিকেট সংখ্যা।

পরে দেখানো হবে Registration Seat Available কি না এবং টিকিটের দাম। সেখানে সবকিছু ঠিক থাকলে Purchase ticket বাটনে ক্লিক করতে হবে।

ক্রেডিট কার্ড, ক্যাশ কার্ড কিংবা ব্রাক ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট দিয়ে টিকিটের দাম পরিশোধ করতে পারবেন যাত্রীরা। পরে যাত্রীর ই-মেইলে ই-টিকেটটি পাঠিয়ে দেবে বাংলাদেশ রেলওয়েল।

এরপর সেই টিকিট প্রিন্ট দিয়ে ফটো আইডিসহ ট্রেনে ভ্রমণ করতে পারবেন। কিংবা ই-টিকেট প্রদত্ত Ticket Print Information দিয়ে সংশ্লিষ্ট স্টেশন থেকে যাত্রার পূর্বে ছাপানো টিকেটও সংগ্রহ করতে পারবেন।