বাংলাদেশের সামরিক শক্তি ২০২২ - Military power of Bangladesh 2022
Bangladesh’s military strength 2022

বাংলাদেশের সামরিক শক্তি ২০২২ - Military power of Bangladesh 2022

গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ার নামক একটি সংস্থা ২০২২ সালের সামরিক শক্তিধর দেশগুলোর তালিকা প্রকাশ করেছে। এই তালিকায় থাকা ১৪২ টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৪৬ তম। এবছর বাংলাদেশ ১ ধাপ পিছিয়েছে , গত বছরে বাংলাদেশ ৪৫ নম্বরে ছিল ।

একটি দেশের শসস্ত্র বাহিনী স্থল, নৌ এবং আকাশ প্রতিরক্ষা বাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত হয় ধাপে ধাপে আমরা বাংলাদেশের প্রতিটা বাহিনীর সামরিক সক্ষমতা তুলে ধরছি ।

বাংলাদেশ LAND FORCE বা স্থলবাহিনী

২০২২ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ১৪০ টি দেশের তালিকায় ৪৬ নম্বরে রয়েছে , কিন্ত ২০২১ সালে ৩০ নম্বরে ছিল ,   এক ধাপে এত অবনতি নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছুই নেই ,কারন গ্লোবাল ফায়ার সেনাবাহিনীর র‍্যাংক প্রকাশ করে থাকে সেই দেশের ট্যাংক সংখার বিবেচনায় , বিশ্বের সের এই সামরিক র‍্যাংকিং প্রকাশকারী ওয়েবসাইটের এমন তালিকা প্রকাশ নিয়ে আমরা একটু অবাক হয়েছি , কারন গতবছর গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ার বাংলাদেশের ট্যাংকের সংখ্যা ৬২০ টি দেখিয়েছিল ,  কিন্ত এ বছর ৩২০ টি দেখিয়েছে ,   গত বছর ওয়েবসাইট গুলোতে ৩২০ টি দেখিয়েছিল , চীনের কাছে অর্ডার করা ৪৪টী vt-5 সহ , যদিও বছরের শেষের দিকে বাংলাদেশ সেগুলো ডেলিভারি পেয়েছে ,   বাকি ৩০০ টি ট্যাংক নিয়ে গতবছর থেকেই আমরা ধোয়াশা প্রকাশ করেছি  , তবে আমরা এতটুকু বলতে পারি বাকি ৩০০ টী ট্যাংক বাংলাদেশের কাছে গোপনে থাকার সম্ভাবনা বেশি , আর থাকুক না থাকুক , এটা নিয়ে কোনো ঝামেলা আছে নিশ্চিত  তারপরেও আমাদের গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ার এর উপরেই আস্থা রাখতে হবে ।

অন্যান্য বিষয়সমুহ জেনে নিই

২০২২ সালে বাংলাদেশের কাছে আর্মড ফাইটিং ফেহিকল রয়েছে সাড়ে আটশটির মতো , যেখানে ২০২২ সালে ২০০০ টি দেখিয়েছিল গ্লোবাল ফায়ার পাওয়ার , 

সেলফ প্রোপেলড আর্টিলারি রয়েছে ৩০ টির বেশি যেখানে ২০২১ সালে ৫৪ টি দেখিয়েছিল জিএফবি,টাওয়েড আর্টিলারি রয়েছে ৩৭১ টি , যেখানে গতবছর জিএফবি ৪৮৬ টি দেখিয়েছিল , তবে ৪০০ টির মতোই হবে।

রকেট প্রজেক্টরস রয়েছে ৬৯ টি ,  তবে আমাদের মতে ৬৭ টি রয়েছে , এর মধ্যে trg-300 রয়েছে ১৮ ইউনিট ।

এছাড়াও Armoured recovery vehicle রয়েছে ২০ টির মতো এবং Bomb disposal equipment রয়েছে ১ টি । 

শত্রু পক্ষের ট্যাংক দ্ধংশ করার জন্য নতুন পুরাতন মিলিয়ে মোট এন্টি ট্যাংক ওয়েপন্স রয়েছে ২০০ টির বেশি , যা বাংলাদেশের জন্য যথেষ্ট নয় এবং অন্যান্য মর্টার অস্ত্র রয়েছে সাড়ে ৫শ টির মতো।

এভিয়েশন হিসেবে সেনাবাহিনীর রয়েছে , ১ টি   Airbus C-295W  transport aircraft , এছাড়া আরো একটী Utility aircraft রয়েছে , (Cessna 208B Grand Caravan)

৪ টি ব্যাসিক ট্রেইনার এয়ারক্রাফট রয়েছে , (DA40NG) আরো ৫ টি লাইট ট্রেইনার এয়ারক্রাফট রয়েছে (Cessna 152 Aerobat) ছোটখাটো আক্রমনে সক্ষম স্বসস্ত্র স্বজ্জিত ৫ টি রাশিয়ার অত্যাধুনিক (Mi-171Sh) রয়েছে। এছাড়াও মোট ৫ টি ইউলিটি বা বেসামরিক হেলিকপ্টার রয়েছে ৫ টি , ২ টি ফ্রান্সের (Eurocopter AS365 Dauphin) এবং আরো ৩ টি আমেরিকার (Bell 206) 

এছাড়াও সামরিক সরঞ্জাম সহ সেনা পরিবহন কিংবা রেসকিউ এর জন্য  ৪ টি ল্যান্ডিং ক্রাফট জাহাজ রয়েছে সেনাবাহিনীর , (Type 074 class: BS Jahangir) এবং আরো ১৬৫ টি স্পিড বোট রয়েছে সেনাবাহিনীর , {(Metal Shark Boat) (Sea Horse-13) (Kingfisher-29) (MFG-23C)} 

এই ছিল সেনাবাহিনীর অস্ত্রশস্ত্র এবার আনুসাংগিক কিছু বিষয় , 

২০২২ সালে বাংলাদেশের সামরিক বাজেট  3.8 বিলিয়ন মার্কিন ডলার , যা ২০২২ সালে 4,2 বিলয়নে ছিল , এ বছর না বেড়ে আরো কমেছে , বাংলাদেশের সামরিক বাজেট সত্তিই অনেক হতাশাজনক ,যেখানে বাংলাদেশের মতো একটি উন্নত দেশ কোনোরকম চাপ ছাড়াই অন্তত ৮-১০  বিলিয়ন মার্কিন ডলার বাজেট রাখতে সক্ষম সেখানে বাংলাদেশ মাত্র 3.8 বিলিয়ন মার্কিন ডলার  সামরিক বাজেট রেখেছে , আমাদের চাওয়া বাংলাদেশ সরকার ভবিষ্যতে আরো বৃদ্ধি করেব সেনাবাহিনীর সামরিক বাজেট।

২০২২ সালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সৈন্য সংখ্যা রয়েছে ১৬৫ লাখ , যেখানে ২০২১ সালে জি এফ বি  ২ লাখ ৪ হাজার দেখিয়েছিল , তবে ২০২২ সালের সংখ্যাটাই ঠিক হবে বাংলাদেশের কোন রিজার্ভ ফোর্স নেই । তবে ৬৮ লাখের বিশাল এক প্যারামিলিটারি ফোর্স বা আধা সামরিক বাহিনী রয়েছে বাংলাদেশের যা বিশের ১ নম্বরে রয়েছে প্রতিবারের মতই।

বাংলাদেশ নৌবাহিনীর সামরিক শক্তি

২০২২ সালে বাংলাদেশ নৌবাহিনী র‍্যাংকিং এ ১৪০ টি দেশের তালিকায় ৩১ নম্বরে রয়েছে। যেখানে ২০২১ সালে ২৪ নম্বরে ছিল পিছিয়ে যাওয়ার কারন , বাংলাদেশ সেভাবে কোনোকিছু বাড়াইও নি আবার কমাইও নি ,অপরদিকে অন্যান্য দেশ তাদের নৌবাহিনীতে গতবছর অনেক কিছু সংযুক্ত করেছে । ২০২২ সালে বাংলাদেশের নৌবাহিনীতে সাবমেরিনসহ  সামরিক কাজে নিয়োজিত মোট নৌযান রয়েছে ১১২ টি। গতবছর ও ১১২ টিও ছিল।

গত বছরের ন্যায় এ বছর ও বাংলাদেশের সাবমেরিন রয়েছে ২ টি, ফ্রিগেট রয়েছে ৭ টি এবং কর্ভেট রয়েছে ৬ টি ,পেট্রোল ভেসেলস রয়েছে ৩০ টি,শত্রু পক্ষের যুদ্ধজাহাজ ধংশ করার জন্য মাইন ওয়ারফেয়ার রয়েছে ৫ টি , এছাড়াও অন্যান্য কিছু ছোট খাটো বোট এবং জাহাজ রয়েছে।

বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর সামরিক শক্তি

২০২২ সালে বাংলাদেশ বিমানবাহিনী ১৪০ টি দেশের তালিকায় ৫১ নম্বরে রয়েছে। গতবছর ছিল ৫৩ নম্বরে গত বছরে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীতে কিছু ট্রেইনিং বিমান ছাড়া তেমন কিছুই যুক্ত হয়নি । বরাবরের মতোই বাংলাদেশ প্রধান যুদ্ধবিমান রয়েছে ৪৪ টি , তার মধ্যে ৩৬ টিই হলো ৭০ এর দশকের প্রযুক্তির  Chengdu f-7  আর  মাত্র ৮ টি রয়েছে ৮০র দশকের প্রযুক্তির  চর্থ  প্রজন্মের মিগ-২৯। দুক্ষজনক ভাবে আজ ৫ বছর ধরে বাংলাদেশের  MRCA বা মাল্টিরোল-কম্বাট-এয়ারক্রাফট প্রজেক্ট ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে । অথচ আমাদের বাংলার আকাশ রয়েছে শত্রুর আক্রমন ঝুকিতে যেখানে আমাদের পার্শ্ববর্তী শত্রু দেশ গুলো উন্নত প্রযুক্তির যুদ্ধবিমান ব্যাবহার করছে , সেখানে আমরা সেই ৭০ আর ৮০র দশকের বিমান নিয়ে পড়ে আছি। বাংলাদেশ আকাশ রাখিব মুক্ত বিমানবাহিনীর এই স্লোগান যেন আজ ফাকা আওয়াজে পরিনত হয়েছে। এনি ওয়ে্‌ বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর প্রশিক্ষন বিমান রয়েছে ৬৩ টি ,প্রশিক্ষন বিমান রয়েছে ১৩ টি।

বাংলাদেশের কাছে কোনো Dedicated Attack Aircraft নেই কোনো এটাক হেলকপটার । তবে সম্প্রতি রাশিয়া থেকে ৮ টি এটাক হেলিকপ্টার অর্ডার করা হয়েছে যেগুলো সার্ভিসে আসতে কয়েকবছর সময় লাগবেই । এটাক হেলিকপ্টার না থাকলেও   ৬৬ টি সাধারন হেলিকপ্তার রয়েছে , যেগুলোর সবিই ইউটিলিটি হেলিকপ্টার যা ব্যবহৃত হয় পরিবহন এবং উদ্ধার কাজে যুদ্ধের মদানে শুধুমাত্র নিরাপদ জোনে কিছু সরঞ্জাম এবং সৈন্য ডেলিভারি দিতে পারবে এগুলো। তাছাড়া সামান্য ঝুকিপুর্ন স্থানেও যাওয়ার কোনো ক্ষমতা নেই এগুলোর।