বিশ্বের সবচেয়ে  শক্তিশালি ৫টি মুসলিম দেশ - 5 Most Powerful Muslim Countries in the World

বিশ্বের সবচেয়ে  শক্তিশালি ৫টি মুসলিম দেশ - 5 Most Powerful Muslim Countries in the World

গত কয়েক বছরের বিশ্বের বেশ কয়েকটি মুসলিম দেশ সামরিক শক্তিতে অগ্রগতি অর্জন করেছে। এর মধ্যে রয়েছে সৌদি আরব, তুরস্ক, মিসর, ইরান, পাকিস্তান। বিশ্বের সবচেয়ে ৫টি মুসলিম শক্তিশালি দেশ। পৃথিবীর বেশিরভাগ মুসলমান দেশ যথেষ্ট ধনী এবং খনিজ সম্পদে পরিপূর্ণ হয়ে আছে। কিন্তু পৃথিবীতে এমন অনেক মুসলিম দেশ আছে যাদের চ্যালেঞ্জ করা বিশ্বের অধিকাংশ দেশগুলোর জন্য কঠিন হতে পারে।. উল্লেখ্য. সামরিক শক্তি মূল্যায়নের ক্ষেত্রে সামরিক শক্তিতে সবচেয়ে বেশি  শক্তিশালি  মুসলিম দেশ বলে মনে করা হয়, যুদ্ধ সরঞ্জাম হিসাবে দেওয়া হয়নি।

মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে এ ৫ টি দেশ অন্যদের থেকে তুলনামূলক এগিয়ে রয়েছে।

তুরস্ক :

সামরিক শক্তিতে বিশ্বে তুরস্ক বর্তমানে অষ্টম অবস্থানে রয়েছে। আর মুসলিম দেশগুলোর মধ্যে দেশটি রয়েছে সবার শীর্ষে। দেশটির সামরিক শক্তির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে, সাঁজোয়া যান, কামান, হালকা ট্যাঙ্ক, ড্রোন, যুদ্ধবিমান, ক্ষেপণাস্ত্র, জঙ্গিবিমান ইত্যাদি।

পাকিস্তান :

মুসলিম বিশ্বের দেশগুলোর মধ্যে পাকিস্তান একমাত্র পারমাণবিক অস্ত্রসমৃদ্ধ দেশ। ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তিতেও দেশটি অগ্রগামী। পাকিস্তানের হাতে যুদ্ধজাহাজ, সাবমেরিন ও অত্যাধুনিক যুদ্ধবিমান রয়েছে।

ইরান :

দীর্ঘ তিন দশক ইরানের ওপর পশ্চিমা অবরোধ এবং একই সময়ে ইরাক যুদ্ধ ইরানকে সামরিক ক্ষেত্রে স্বাবলম্বী করে তুলতে সাহায্য করে। দেশটির হাতে অত্যাধুনিক ট্যাংক, ভারী সাঁজোয়া যান, ক্ষেপণাস্ত্র, যুদ্ধবিমান, ড্রোন, হেলিকপ্টার গানশিপ, যুদ্ধজাহাজ, বিভিন্ন মডেলের সাবমেরিন, অসংখ্য গানবোর্ট, গোয়েন্দা উপকরণসহ যুদ্ধাস্ত্র নির্মাণের প্রযুক্তি রয়েছে।

সৌদি আরব :

অস্ত্র আমদানিতে বিশ্বের সর্বোচ্চ অর্থ ব্যয়কারী দেশ হচ্ছে সৌদি আরব। দেশটিতে এমন কিছু অত্যাধুনিক সমরাস্ত্র রয়েছে যেগুলো মার্কিন সেনাবাহিনীতেও প্রচলন হয়নি।

মিসর :

সামরিক বাহিনীর শক্তিমত্তার দিক থেকে মিসর বেশ এগিয়ে। তবে দেশটির প্রতিরক্ষা খাত পশ্চিমা অস্ত্রশস্ত্রের ওপর নির্ভরশীল। মিসরের প্রতিরক্ষা শিল্প ট্যাংকসহ মাঝারি আকারের অস্ত্রশস্ত্র নির্মাণ করে থাকে।