নিষন্ন পাখির নীড়ে

কবি: মতিউর রহমান মল্লিক

তুমি কি এখন স্বপ্নভঙ্গ কেউ

একাকী কোথাও আহত পাখির শোক

ছলছল চোখে এলোমেলো করো ঢেউ

তুমি কি এখন শরাহত কোনো লোক!

-

তুমি কি ভেবেছো সূর্যটা ডুবে গেছে

তুমি কে ভেবেছো নেই আর কোনো আলো

তুমি কি ভেবেছো শিলীভূত হয়ে আছে

অনন্ত এক আকাশের ঘনকালো

-

রাত্রির পরে সকাল যে ফিরে আসে

সে কথা জানো কি তুমি

শেষাবধি কোনো লোকালয় উদভাসে

দৃঢ়পদভারে পার হলে বনভূমি

মানুষের নামে যারা কলঙ্ক তারা মানে

পরাভব

যোগ-গুণ-ভাগ নিয়েতো অঙ্ক বিয়োগ নয়তো

সব

-

তবুও তুমি কি উঠে দাঁড়াবে না আজ

বুক টান করে নামবে না পথে আর

পাড়ি জমাবে না আকাশের শাহবাজ

ছিঁড়বে না টুটি দুরন্ত ঝঞ্ঝার

-

একটু আঘাতে সিংহের বাড়ে ক্ষোভ

একটু আঘাতে বাঘ ছাড়ে হুংকার

একটু আঘাতে জ্বলে ওঠে বিক্ষোভ

বজ্রসভায় বিদ্যুৎ বারতার

-

এসব খবরে তুমি কি হও না দ্বিগুণ

উৎসাহী কোনো পুরুষোত্তম কেউ

অথবা কেবল নিজেকে করছো খুন

বিষের পাত্রে স্বেচ্ছায় তুলে ঢেউ

-

হতাশ হয় না জিহাদের জঙ্গীরা

হতাশ হয় না কোনো খাঁটি বিপ্লবী

হতাশ হয় না শহীদের সঙ্গীরা

বুকে নিয়ে ফেরে ঈমানের দুন্দুভি

-

চলে অবিরাম চির মুজাহিদ বীর

সত্যের পথে সেনানী অকুতোভয়

ছিঁড়ে ফেলে দিয়ে নিরাশার জিঞ্জির

সে শের-দিলীর মানে নাকো পরাজয়

-

এখনো এখানে মাদানীর খুন মাখা

শহীদ মালেক এখনো এখানে শুয়ে

মানুষের মনে কোরানের ছবি আঁকা

তবু কেনো তুমি পড়বে বন্ধু নুয়ে

-

তোমার সামনে তিতুমীর আছে

আছেতো খানজাহান

হাজী শরীয়ত আছে আরো কাছে

আছে শাহজালাল অম্লান

-

নূর কুতুবুল আলম যেখানে

প্রেরণার প্রিয় মহাপুরুষের নাম

কিসের ভাবনা তোমার সেখানে

বরং চেতনা আরো করো উদ্দাম

-

বখতিয়ারের ঘোড়ার শব্দ ঐ

লোকালয়ে যেনো অবিকল শোনা যায়

তাই কি আমিও দুই কান পেতে রই

সতেরো সওয়ার কবে আসে দরজায়

-

তুমি কি এখন স্বপ্নবিভোর কেউ

মুক্তপক্ষ কোনো বিহঙ্গ শ্লোক

রঙধনু চোখে ছুঁয়ে যাও যতো ঢেউ

তুমি কি এখন জাগরিত কোনো লোক

-

দুর্বল ভীরু আনে না দ্বীনের জয়

খানিক বিপদে ভয়ে কাঁপা তার কাজ

ঈমানের তেজে পৃথিবীর বিস্ময়

শুধু সেই পারে গড়তে হেরার রাজ

-

তবে তুমি ছুটে চলো বেগে আরো বেগে

বন্যার মতো দুরন্ত দুর্বার

চলো তাকবীর জোরে আরো জোরে হেঁকে

পড়ে থাক পিছে পচা লাশ মুর্দার।