মুখে ব্রণ হলে কি করনীয়

মুখে ব্রণ হলে কি করনীয়

(১)ব্রণে হাত বা নখ না লাগানো।

(২)মাথা খুশকিমুক্ত রাখার চেষ্টা করুন।

(৩)মাথা খুশকিমুক্ত রাখার চেষ্টা করা।

(৪)প্রচুর পানি, ফল ও সবজি খাওয়া।

(৫)তেল ছাড়া ওয়াটার বেসড মেকআপ ব্যবহার করুন।

(৬)তেল ছাড়া বা ওয়াটার বেসড মেকআপ ব্যবহার করা।

(৭)চিকিৎসকের পরামর্শে সাবান বা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধোয়া।

(৮)পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকুন এবং আলাদা তোয়ালে ব্যবহার করুন।

(৯)মানসিক চাপ পরিহার করা ও রাতে ঠিকমতো ঘুমানোর চেষ্টা করা।

(১০)কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে হবে। প্রোটিন ও ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার খেতে হবে।

(১১)রাতে পর্যাপ্ত ঘুম দরকার। মানসিক চাপমুক্ত থাকতে হবে। প্রচুর পরিমাণে ফল, সবজি খান ও পানি পান করুন।

(১২)দিনে দু-তিনবার হালকা সাবান বা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুতে হবে। বাইরে থেকে এসেই মুখ ধুয়ে ফেলুন। এ ছাড়া হালকা গরম পানির স্টিম নিতে পারেন।

গোলাপ জল

গোলাপ জলের নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণের দাগ কমে যায়। দারুচিনি গুঁড়োর সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। এই মিশ্রণ ব্রণের ওপর লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণের সংক্রমণ, চুলকানি এবং ব্যথা অনেকটাই কমে যাবে।

শসা

কেবল খাদ্যগুণই নয়, শসার নানা গুণ রয়েছে। তার মধ্যে একটা অবশ্যই ত্বকের কাজে লাগা। এতে রয়েছে ভিটামিন এ, ডি এবং ই। এর প্রতিটিই ত্বকের জন্য মারাত্মক ভালো। শসা থেঁতো করে মুখে লাগিয়ে রাখতে পারেন। ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখার পর ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে নিন মুখ। এছাড়াও শসাকে অন্যভাবে ব্যবহার করতে পারেন। শসা গোল গোল করে কেটে অন্তত একঘণ্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন। তারপর সেই পানি খেয়েও নিতে পারেন, বা ওই পানি দিয়ে মুখও ধুয়ে নিতে পারেন।

টুথপেস্ট

ফেসপ্যাকের মতো করে ব্যবহার করতে পারেন টুথপেস্ট। মুখের অতিরিক্ত তেল টেনে নেওয়ায়র ক্ষমতা আছে এই পেস্টের। ফলে তৈলাক্ত ত্বকের কারণে যাদের মুখে ব্রণ বা গোটা বেরয়, তারা টুথপেস্ট ব্যবহার করে উপকার পেতে পারেন। তবে বেশি নয়, খুব অল্প পরিমাণে ব্যবহার করুন ব্রণের জায়গায়। সমস্যা না হলে পরিমাণ বাড়ান।

নিমপাতা

নিমপাতা খুব ভাল জীবাণুনাশক। তাই ব্রণ সারাতে নিমপাতা খুবই উপকারী। নিমপাতা বেটে সঙ্গে চন্দনের গুঁড়া মিশিয়ে মিশ্রণ তৈরি করুন। এই মিশ্রণ ত্বকে লাগিয়ে ১৫-২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।

গ্রিন টি

গ্রিন টি গোটা বা ব্রণের বিরুদ্ধে খুবই কার্যকরী। গরম পানি গ্রিন টি বানান। তারপর সেই গ্রিন টি একদম ঠাণ্ডা করে ব্রণ বা গোটার জায়গায় ব্যবহার করুন। তুলায় ভিজিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে ভালো করে ত্বকের ওপর মিশতে পারবে চায়ের মিশ্রণটি। যদি টি ব্য়াগ থেকে গ্রিন টি বানান, তাহলে ঠাণ্ডা গ্রিন টি ব্যাগটিও রাখতে পারেন ত্বকের ওপর। মিনিট ২০ রাখার পর ধুয়ে নিন।

পুদিনা পাতা

পুদিনা পাতা ত্বকের অতিরিক্ত তেল এবং ব্রণের সংক্রমণ কমাতে খুবই উপকারী। টাটকা পুদিনা পাতা বেটে ত্বকে লাগান। ১০-১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। এতে ত্বকের অতিরিক্ত তেল দূর হবে। অতিরিক্ত গরমের কারণে ত্বকে ফুসকুড়ি এবং ব্রণ হলে সেগুলো দূর করতেও পুদিনা পাতা উপকারী। টাটকা পুদিনা পাতা বেটে ব্রণে ২০ মিনিট লাগিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

রসুন

রসুন ব্রণের বড় শত্রু। এটি ব্যবহার করাও খুব সহজ। এক-দুই কোয়া রসুন দুই টুকরা করে কেটে নিন। তারপর ব্রণের জায়গায় রসটা লাগান। মিনট পাঁচেক পরে ধুয়ে ফেলুন। রাতে শুতে যাওয়ার আগে এটা করলে পরদিন সকালে ত্বকের উন্নতি টের পাবেন।

লেবুর রস

তুলায় করে লেবুর রস ব্রণের জায়গায় লাগিয়ে নিতে পারেন। লেবুর রসের সঙ্গে দারুচিনির মিশ্রণ তৈরি করে, রাতে শুতে যাওয়ার আগে সেটা ব্রণের ওপর লাগিয়ে রাখতে পারেন। সকালে হালকা উষ্ণ পানিতে ধুয়ে নেবেন।

অ্যাসপিরিন

খাওয়ার ওষুধ হিসেবেই নয়, ব্রণ বা গোটা সারাতেও এই ওষুধের জুড়ি নেই। এতে থাকা স্যালিসাইলিক অ্যাসিড ব্রণ তাড়াতাড়ি শুকিয়ে দেয়। চার-পাঁচটা ট্যাবলেট প্রথমে গুঁড়িয়ে নিন। তারপর সেগুলো অল্প পানির সঙ্গে মেশান। এমনভাবে মেশাবেন, যাতে একটা পেস্ট তৈরি হয়। রাতে শুতে যাওয়ার আগে পেস্ট আক্রান্ত জায়গায় লাগান। সকালে উঠে ধুয়ে ফেলুন। ত্বক খুব স্পর্শকাতর হলে, কয়েক মিনিট লাগিয়ে রেখে ধুয়ে নিতে পারেন।

এলোভেরা দিয়ে ব্রণ দূর

ব্রণ দূর করার জন্য আপনার নিত্যদিনের সাধারণ ফেসপ্যাকেই অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে নিতে পারেন। যদি ব্রণের পরিমাণ খুব বেশি না হয় তাহলে মুলতানি মাটি, চন্দন, গোলাপ জল ও অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে ফেস প্যাক তৈরি করুন ও মুখে মাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। ব্রনে খুব জ্বালাপোড়া ও ব্যথা থাকলে অ্যালোভেরা জেল ফ্রিজে জমিয়ে বরফ তৈরি করে নিন ও সেই বরফ আক্রান্ত জায়গায় ঘষুন।

ব্রনের চিকিৎসা:

ডাক্তারের পরামর্শ মতে ওষুধ সেবন, ভালো সাবান দিয়ে আলতুভাবে মুখ ধুয়ে পরিষ্কার রেখে স্বাস্থ্যকর জীবন যাপনে অতি অল্প সময়ে ব্রণ এবং ব্রণের দাগ থেকে চিরমুক্তি সম্ভব ।

ছেলেদের মুখের ব্রণ দূর করার উপায়,মুখের ব্রণের দাগ দূর করার উপায়,মুখের ব্রণ দূর করার ঔষধ,মুখের ব্রণ দূর করার ক্রিম,ছেলেদের মুখের কালো দাগ ও ব্রণ দূর করার উপায়,ছোট ছোট ব্রণ দূর করার উপায়,ব্রণ দূর করার ঔষধের নাম,হাত মারলে কি মুখে ব্রণ হয়,ছেলেদের ব্রণ দূর করার উপায়,মুখের ব্রণ দূর করার ঔষধ,ব্রণ দূর করার ঔষধের নাম,ব্রনের ট্যাবলেট,এক রাতে ব্রণ দূর করার উপায়,ব্রণ কেন হয়,ছোট ছোট ব্রণ দূর করার উপায়


পরবর্তী খবর পড়ুন : চরফ্যাসনে মাদকসহ পুলিশের জালে ৪ যুবক