মেয়েদের ব্রেস্ট টাইট করার উপায় - Ways to tighten the breasts of girls
Ways to tighten the breasts of girls

মেয়েদের ব্রেস্ট টাইট করার উপায় - Ways to tighten the breasts of girls

আমাদের দেশের অধিকাংশ মেয়েরই বয়সের কারণে, বাচ্চা হলে, মেডিসিনের প্রভাবে স্তন ঢিলে হয়ে ঝুলে যায়। ওজন বেড়ে গেলে কিংবা হরমোন জনিত কারণেও ঢিলে হয়ে ঝুলে যায় স্তন। আমাদের দেশের প্রাকৃতিক আবহাওয়াটাই এমন যে একটা সময়ের পরে মেয়েদের শারীরিক অবস্থান পরিবর্তন হয়। আর এসব ব্যাপার মেয়েরা সবার সঙ্গে শেয়ার করতে লজ্জা পান।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শরীরের আকর্ষণও কমে যায়। স্তন ঝুলে গেলে মেয়েদের স্বাভাবিক সৌন্দর্য নষ্ট হয়ে যায়। আর বাজারে যে সব মেডিসিন রয়েছে তাতে রয়েছে প্রচুর পার্শ্বপতিক্রিয়া। আপনি চাইলে প্রাকৃতিকভাবে ঘরোয়া উপায়েই আগের সব কিছু ফিরে পেতে পারেন।

সঠিক খাবার

স্তনের সঠিক শেইপ ফিরে পাবার জন্য আপনার প্রতিদিনের খাবারের দিকেও খেয়াল রাখতে হবে। ব্রেস্ট টাইট করার জন্য পর্যাপ্ত প্রোটিনের প্রয়োজন হয়। তাই আপনার প্রতিদিনের খাবারের তালিকায় দুধ, ডিম এবং ডাল অবশ্যই অন্তর্ভুক্ত করবেন। এছাড়াও খনিজ ভিটামিন এবং ক্যালসিয়ামের মতো প্রয়োজনীয় পুষ্টিগুণ দরকার যা আপনি বাঁধাকপি, ফুলকপি, টমেটো, গাজর, পটল এবং ব্রকলি জাতীয় খাবার থেকে পেতে পারেন। প্রতিদিন এই খাবারগুলো খেলে ঝুলে যাওয়া স্তনের সঠিক শেইপ ফিরে পাবেন।

এ্যলোভেরা

এ্যলোভেরা জেল স্তন টান টান ও মসৃণ করতে এবং ত্বকের যাবতীয় সমস্যা দূর করতে এর ভূমিকা অসাধারণ। এ্যলোভেরা জেলে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘ই` যা স্তনের ভেতর থেকে টাইট ও টান টান করে।

সাঁতার কাটা

প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ মিনিট সাঁতার কাটুন। এতে আপনার স্তনের পেশি শক্ত হবে এবং সঠিক শেইপ ফিরে আসবে। তাই স্তনের সঠিক শেইপ ফিরে পেতে প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ মিনিট সাঁতার কাটুন।

বরফ ঘষা বা আইস রাব

এটি করতে আপনার অস্বস্থি লাগতে পারে কিন্তু এটি খুবই কার্যকরী একটি প্রক্রিয়া। কয়েক কিউব বরফ নিন এবং আপনার স্তনের চারপাশে প্রায় ১-২ মিনিটের জন্য বৃত্তাকার গতিতে ম্যাসাজ করুন। এটি আপনার স্তনের পেশী শক্ত করতে এবং এর আশেপাশের সেলুলাইটের সাথে লড়াই করতে সহায়তা করবে। প্রতিদিন নিয়ম করে কেবলমাত্র ১-২ মিনিট এই প্রক্রিয়াটি অনুসরণ করলে আপনার ঝুলে যাওয়া স্তনের সঠিক শেইপ ফিরে পাবেন।

ভ্যাসলিন ও অলিভ অয়েল

আধা চা চামচ ভ্যাসলিন একটি বাটিতে নিন। হাফ চা চামচ অলিভ অয়েল নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। ভালো করে মেশানোর পর এটি একই প্রক্রিয়ায় স্তনের চারপাশে আলতোভাবে ম্যাসাজ করুন। এই ম্যাসাজের ফলে ব্লাড সার্কুলেশন বৃদ্ধি পেয়ে ত্বকের কোষগুলো সজীব ও টান টান করে তুলবে। রাতে সেটি (মিশ্রণটি) স্তনে মেখে সকালে উঠে কিংবা গোসল পর্যন্ত রেখে ধুয়ে ফেললে বেশি উপকার পাবেন। অল্প কিছুদিন ব্যবহার করলেই ফলাফলের প্রমাণ পাবেন। আর যাদের স্তন বেশি ঝুলে পড়েছে তারা এইভাবে ১৫-২০ দিন ব্যবহার করুন আশা করি স্থায়ী সমাধান পাবেন।

ম্যাসাজ করা

প্রতিদিনের ম্যাসাজে আপনার স্তনের পেশীগুলোকে শক্ত করবে। অলিভ ওয়েল কিংবা অ্যালোভেরা জেল দিয়ে প্রতিদিন ৫-৬ মিনিট আপনার স্তনের আশেপাশে ম্যাসাজ করুন। এটি আপনার রক্ত সঞ্চালন বাড়াতে সাহায্য করবে এবং আপনার ঝুলে যাওয়া স্তন ফিরে পাবে সঠিক শেইপ।

প্রচুর পানি পান

স্তনের সঠিক শেইপ ফিরে পেতে প্রতিদিন প্রচুর পানি পান করতে হবে। প্রতিদিন কমপক্ষে ৪ লিটার পানি পান করুন। শরীরে যখন জলের অভাব দেখা দেয় তখন ত্বকে বয়সের ছাপ পড়ে যায়। ত্বকের চামড়া ঝুলে যায় এবং কুঁচকানো দেখায়। পানির অভাবে সবথেকে বেশি ক্ষতির সম্মুখীন হয় ত্বক এবং স্তন। তাই স্তনের সঠিক শেইপ ফিরে পেতে প্রচুর পানি পান করুন।

ব্রা সিলেকশন 

দীর্ঘক্ষণ ব্রা পড়ে থাকলে স্তনের শেইপ নষ্ট হয়ে যায়। তাই দীর্ঘক্ষণ ব্রা পড়ে থাকবেন না। আবার ব্রা পড়া একেবারেই ত্যাগ করা যাবেনা। দীর্ঘক্ষণ ব্রা পড়া যেমন ক্ষতিকর আবার একেবারে না পড়াও ক্ষতির কারণ। ব্রা সিলেকশনে একটু সচেতন হোন।

ধূমপান ত্যাগ করুন 

ধূমপানের ফলে স্তন ঝুলে যায় এইটা হয়তো আমাদের অনেকেরই জানা নেই। মেয়েরা ধূমপান করলে ত্বকেরও ক্ষতি হয়। তাই ধূমপান ত্যাগ করতে হবে।

এক্সারসাইজ করুন

কিছু এক্সারসাইজ আছে যা প্রতিদিন করলে আপনার ঝুলে পড়া স্তন সঠিক শেইপ ফিরে পাবে। সবচেয়ে সহজ এবং কার্যকরী হলো পুশ-আপ। এছাড়াও চেস্ট প্রেস, ডাম্বল ফ্লাইস, টি-প্লাঙ্কস, এলবো স্কুইজ ইত্যাদির সাহায্যেও ঝুলে পড়া স্তন সঠিক শেইপ ফিরে পাবে। প্রতিদিন নিয়ম করে ১০-১২ বার এই এক্সারসাইজগুলো করলেই হবে।

ডিমের সাদা অংশ

স্তন টাইট করতে কার্যকরী উপাদান হচ্ছে ডিম। এটিও প্রাকৃতিকভাবে আপনার স্তন টান টান করতে সাহায্য করবে। প্রথমে ডিম থেকে কুসুম ছাড়িয়ে নিতে হবে এরপর একটি পাত্রে ডিমের সাদা অংশটি চামচ দিয়ে ভালো করে ফেটাতে হবে। শুধু এই উপাদানটিই গোসলের ২০ মিনিট পূর্বে স্তনের চারপাশে তেলের মতো নিচ থেকে উপরের দিকে ম্যাসাজ করতে হবে। মাত্র ১০-১২ দিন এই উপাদানটি ব্যবহারে আপনার স্তনের পরিবর্তন লক্ষণীয় হয়ে উঠবে।