পায়ের ব্যথা কমানোর উপায় - Ways to reduce leg pain
Ways to reduce leg pain

পায়ের ব্যথা কমানোর উপায় - Ways to reduce leg pain

ঠাৎ করেই পায়ের ব্যথা শুরু। অসহ্য ব্যথায় দিশেহারা আপনি। বুঝতেও পারছেন না কিভাবে ব্যথা হলো। আসলে পায়ের ব্যথার অনেক কারণ থাকরে পারে। সারাদিন এই পায়ের ওপর দিয়ে অনেক প্রেসার যায়। শরীরে সবথেকে একটিভ কোনো অঙ্গ থাকলে সেটা হলো পা। তাই পায়ের বেলায় কোনো ছাড় দেয়া যাবে না। ব্যথা হলেও প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে নিন। সাধারণত পেশীতে টান পড়া, বৃদ্ধ বয়স, অনেক বেশি হাঁটাসহ বিভিন্ন কারণে হতে পারে পায়ে ব্যথা।

যারা সাধারণত হাঁটতে অভ্যস্ত নন, তাদের পা ফেলতেই খুব কষ্ট হয় লম্বা সময় হাঁটার পর পায়ের ব্যথা হলে খুব কষ্ট হয়, তাৎক্ষণিক ভাবে এই ব্যথা সারাতে আপনি ঘরে বসেই সমাধান পেতে পারেন। আর হিল পরে যারা হেঁটেছেন তাদের তো কথাই নেই! আজ এই পায়ের ব্যথা দূর করা যায় এমন সহজ কিছু উপায় দেখে নিন।

পায়ে ব্যথার বিভিন্ন কারণ

আপনার পা আঘাতপ্রাপ্ত হতে পারে বিভিন্ন কারণে। পায়ে ব্যথা পাবার কিছু কমন কারণগুলো হলো-

১) সঠিক মাপের জুতা পরিধান না করা।

২) এমন হাই হিল পরিধান করা যাতে পায়ের গোড়ালিতে অনেক চাপ পড়ে।

৩) অতিরিক্ত এক্সারসাইজ অথবা খেলাধুলা।

৪) গর্ভধারণ, ডায়াবেটিস, স্থূলতা অথবা বিভিন্ন মেডিকেল কন্ডিশন।

৫) পায়ে আঘাত পাওয়া ইত্যাদি কারণে পায়ে ব্যথা হতে পারে।

পায়ে ব্যথার কিছু লক্ষণ

১. যখন তখন পা ব্যথা করা।

২. ফুলে যাওয়া।

৩. লাল হয়ে যাওয়া।

৪. চলাফেরা করার সময় ব্যথা করা বা অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকার কারণে ব্যথা করা।

৫. পায়ের চামড়া বিবর্ণ হয়ে যাওয়া পুড়ে যাওয়া বা চুলকানির মত অনুভব করা।

৬. পায়ের হাড় ভেঙে যাচ্ছে এমন অনুভব করা ইত্যাদি।

পায়ে ব্যথা উপশমের কার্যকর ঘরোয়া পদ্ধতি

১. ঠাণ্ডা স্যাঁক

পায়ে ব্যথা কমাতে ঠাণ্ডা স্যাঁক দেওয়া যেতে পারে। এটি আক্রান্ত স্থানের প্রদাহ ও ফোলা ভাব কমাতে কাজ করে।

একটি ব্যাগের মধ্যে কয়েকটি বরফের টুকরো নিন। এবার একে তোয়ালে দিয়ে মুড়ে নিন।

আক্রান্ত স্থানে ১০ থেকে ১৫ মিনিট এটি দিয়ে স্যাঁক দিন।

দিনে কয়েকবার এ পদ্ধতি অনুসরণ করুন।

তবে বরফ সরাসরি ত্বকে লাগাতে যাবেন না।

২. হলুদ

পায়ে ব্যথা কমাতে আরেকটি উপকারী ঘরোয়া উপায় হলো হলুদের ব্যবহার। হলুদের মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট প্রদাহ কমাতে উপকারী।

হালকা গরম সিস্যাম অয়েলের মধ্যে এক চা চামচ হলুদ মেশান। আক্রান্ত স্থানে পেস্টটি মাখুন। ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন দুবার এ পদ্ধতি অনুসরণ করুন।

পাশাপাশি দিনে দুবার হলুদ-দুধ পান করতে পারেন।

৩.আদা

১ ইঞ্চি পরিমাণ আদা কুচি ১ কাপ ফুটন্ত পানিতে মেশান।

এবার এটি ৫-১০ মিনিটের মত ভালো ভাবে ফুটিয়ে নিন।

এবার এই আদা মেশানো পানিতে ১/২ চামচ মধু মিশিয়ে নিন এবং গরম গরম পান করুন।

আপনার প্রতিদিন তিনবার করে এই আদা চা পান করতে হবে।

পা ব্যথা চিকিৎসার জন্য আরেকটি কার্যকর প্রতিকার হলো আদা। এতে জিঙ্গিবেইন (Zingibain) নামে একটি এনজাইম রয়েছে যা চমৎকার অ্যানালজেসিক এবং প্রদাহ বিরোধী। আদা আপনার পায়ের ব্যথা দ্রুত সাড়িয়ে তুলতে একটি উপকারী উপাদান।

৪. ম্যাসাজ

ম্যাসাজ খুব দ্রুত ব্যথা কমাতে কাজ করে। ২০১২ সালে সায়েন্স ট্রান্সলেশনাল মেডিসিন জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণায় বলা হয়, অন্তত ১০ মিনিটের একটি ম্যাসাজ থেরাপি প্রদাহ কমাতে অনেকটাই উপকারী।

সামান্য জলপাইয়ের তেল বা সরিষার তেল গরম করে নিন এবং আক্রান্ত স্থানে ১০ মিনিট ম্যাসাজ করুন।

ভালো ফলাফলের জন্য দিনে দুই থেকে তিনবার ম্যাসাজ করতে পারেন।

৫.বেকিং সোডা

প্রথমে একটি বড় বোলে গরম পানি নিন এবং এতে হাফ কাপ বেকিং সোডা নিন।

বেকিং সোডা সম্পূর্ণ দ্রবীভূত না হওয়া পর্যন্ত ভালোভাবে মিশ্রিত করুন।

১৫-২০ মিনিটের জন্য আপনার পা সোডা মিশ্রিত পানিতে ডুবিয়ে রাখুন।

আপনার প্রতিদিন অন্তত একবার এটি করা উচিত।

বেকিং সোডা বিভিন্ন চিকিৎসার জন্য ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। এতে রয়েছে প্রদাহ বিরোধী বিভিন্ন উপাদান যা পা ব্যথা এবং প্রদাহ উপশম করতে সাহায্য করে।

৬.গরম ও ঠাণ্ডা পানি

পায়ের ব্যথা রোধ করতে গরম ও ঠাণ্ডা পানির থেরাপি খুব উপকারী। গরম পানির থেরাপির কারণে রক্তসঞ্চালন বৃদ্ধি পায় এবং ঠাণ্ডা পানির কারণে ব্যথা দূর করে।

একটি পাত্রে কুসুম গরম পানি নিন ও অন্য একটি পাত্রে ঠাণ্ডা পানি নিন। একটি চেয়ারে বসে তারপর গরম পানির পাত্রে ৩ মিনিট পা ডুবিয়ে রাখুন। তারপর আবার ১০ সেকেন্ড ঠাণ্ডা পানিতে পা ভিজিয়ে রাখুন।

একই ভাবে ২ থেকে ৩ বার এই কাজটি করুন। -আইস প্যাক ও হট প্যাক দিয়েও একই ভাবে পায়ের ব্যথা সারাতে পারেন।

৭.ভিনেগার

নানা ধরণের ঘরোয়া সমাধানেই ভিনেগার ব্যবহার করা হয়। পা ব্যথা সাড়াতেও এটি খুব উপকারী।

একটি পাত্রে কুসুম গরম পানি নিয়ে তার মধ্যে ২ চামচ ভিনেগার মিশিয়ে নিন। চাইলে আপনি সামান্য লবণও মিশিয়ে নিতে পারেন। তারপরে ২০ মিনিট পা দুবিয়ে রাখুন।

৮.লেবুর রস

সমপরিমাণ লেবুর রস এবং ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণটি দিয়ে পায়ের ব্যথা স্থানে ম্যাসাজ করুন। এটি দিনে দুই বা তিনবার করুন। এছাড়া এক কাপ কুসুম গরম পানিতে একটি লেবুর রস এবং সামান্য মধু মিশিয়ে পান করতে পারেন। এটি দিনে দুইবার পান করুন।

.লবঙ্গের তেল

লবঙ্গের তেল কেবল পা ব্যথা কমায় না, এটি রক্ত চলাচল বাড়াতেও সাহায্য করে। ব্যথার স্থানে এটি দিয়ে ম্যাসাজ করুন। ভালো ফলাফলের জন্য দিনে কয়েকবার এই ম্যাসাজ করুন।

১০.ক্যাপসাইসিন ক্রিম

পায়ের ব্যথা সারাতে ক্যাপসাইসিন ক্রিম ব্যবহার করতে পারেন। এটি এমন এক ধরনের ক্রিম যেটি লাল মরিচ থেকে তৈরি হয়। এটি ব্যবহারে চামড়ায় গরম অনুভূত হতে পারে। তারপরও ব্যথা কমাতে এটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।