জ্বর ও মাথাব্যাথায় যে দোয়া পড়বেন - Prayers for fever and headache
Prayers for fever and headache

জ্বর ও মাথাব্যাথায় যে দোয়া পড়বেন - Prayers for fever and headache

মৌসুমি অসুখের মধ্যে জ্বর একটি অন্যতম ব্যাধি। এর সঙ্গে অনেকেরই মাথা ব্যাথার প্রবণতা দেখা যায়। মাথা ব্যাথা ও জ্বরে আক্রমণ থেকে দ্রুতই নিরাময়ের চেষ্টা করে আক্রান্ত ব্যক্তি। কেননা জ্বর ও মাথা ব্যাথার কারণে কোনো মানুষই স্বাভাবিক কোনো কাজ-কর্ম করতে পারে না। কি সাংসারিক কি অফিস-আদালত বা ব্যবসায়িক।

তাই জ্বর ও মাথা ব্যাথায় আক্রান্ত ব্যক্তি চিকিৎসা গ্রহণের পাশাপাশি দ্রুত তা থেকে সুস্থ হতে চেষ্টা করেন। জ্বর ও মাথা ব্যাথা নিরাময়ে রয়েছে কুরআন-সুন্নাহয় ঘোষিত দোয়া ও আমল। যা দ্রুত জ্বর ও মাথা ব্যাথা থেকে আরোগ্য দান করে।

সুস্থতা বান্দার জন্য আল্লাহর অনেক বড় নেয়ামত। তেমনি অসুস্থতাও আল্লাহর নেয়ামত। নবীজি (সা.) বলেছেন, ‘দুর্বল মোমিনের তুলনায় শক্তিশালী মোমিন বেশি কল্যাণকর ও আল্লাহর কাছে বেশি প্রিয়। তবে উভয়ের মধ্যে কল্যাণ রয়েছে। (মুসলিম : ৬৯৪৫)।

দ্রুত মাথাব্যথা থেকে মুক্তি পেতে এ দোয়া পড়া-

لَا يُصَدَّعُونَ عَنْهَا وَلَا يُنزِفُونَ 

উচ্চারণ: লা ইউসাদ্দাউনা আনহা ওয়া লা ইউনজিফুন। 

অর্থ: যা পান করলে তাদের শিরপীড়া হবে না এবং বিকারগ্রস্তও হবে না। (সুরা ওয়াক্বিয়া : আয়াত ১৯)

জ্বরের সময় পড়ার দোয়া

যে কোনো ধরনের জ্বরে এ দোয়া পড়ে মহান আল্লাহর কাছে সাহায্য প্রার্থনা করা আবশ্যক। হাদিসে এসেছে-

হজরত ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু বর্ণনা করেন, নিশ্চয় রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম জ্বর ও গলা ব্যাথায় এভাবে প্রার্থনা করতে শিক্ষা দিতেন-

بِسْمِ اللَّهِ الْكَبِيرِ أَعُوذُ بِاللَّهِ الْعَظِيمِ مِنْ شَرِّ كُلِّ عِرْقٍ نَعَّارٍ وَمِنْ شَرِّ حَرِّ النَّارِ

উচ্চারণ : 'বিসমিল্লাহিল কাবির, আউজুবিল্লাহিল আজিম, মিন শাররি কুল্লি ইরকিন নায়্যার, ওয়া মিন শাররি হাররিন নার।' (মুজামুল কাবির, তাবারানি, তিরমিজি)

অর্থ : মহান আল্লাহর নামে, দয়াময় আল্লাহর কাছে আশ্রয় চাই, শিরা-উপশিরায় শয়তানের আক্রমণ থেকে। শরীরের আগুনের উত্তাপের মন্দ প্রভাব থেকে।'

ব্যাথ্যামুক্ত থাকতে হাদিসের একাধিক দোয়া ও আমলের নির্দেশনা

১. হজরত উসমান বিন আবুল আস আস-সাকাফি রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের কাছে মারাত্মক ব্যথা নিয়ে উপস্থিত হলাম, যে ব্যথা আমাকে প্রায় অকেজো করে ফেলেছিল। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম আমাকে বলেন-

‘তুমি তোমার ডান হাত ব্যথার স্থানে রাখ, ৩ বার- بِسْمِ اللَّهِ বিসমিল্লাহ বল এবং ৭ বার বল-

أَعُوذُ بِعِزَّةِ اللَّهِ وَقُدْرَتِهِ مِنْ شَرِّ مَا أَجِدُ وَأُحَاذِرُ

উচ্চারণ : বিসমিল্লাহি আউজু বিইজ্জাতিল্লাহি ওয়া কুদরাতিহি মিন শাররি মা আঝিদু ওয়া উহাজিরু।

অর্থ : আল্লাহর নামে আমি আল্লাহর অসীম সম্মান ও তাঁর বিশাল ক্ষমতার ওসিলায় আমার অনুভূত এই ব্যথার ক্ষতি থেকে আশ্রয় প্রার্থনা করি।' (ইবনে মাজাহ)

২.হজরত আয়েশা রাদিয়াল্লাহু আনহা বর্ণনা করেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম (ব্যথার স্থানে) ঝাড়-ফুঁক করতেন। আর এ দোয়া পড়তেন-

اَمْسَحْ الْبَاسَ رَبَّ النَّاسِ بِيَدِكَ الشِّفَاءُ لاَ كَاشِفَ لَه“إِلاَّ أَنْتَ

উচ্চারণ : ‘‌আমসাহল বাসা রাব্বান নাসি বিয়াদিকাশশিফাউ লা কাশিফা লাহু ইল্লা আংতা।'

অর্থ : ‘ হে মানুষের পালনকর্তা! ব্যথা দূর করে দাও। আরোগ্য দানের ক্ষমতা শুধু তোমারই হাতে। এ ব্যথা তুমি ছাড়া আর কেউ দূর করতে পারে না।' (বুখারি)