গর্ভাবস্থায় সাদা স্রাবের কারণ - Causes of white discharge during pregnancy
vaginal discharge during pregnancy

গর্ভাবস্থায় সাদা স্রাবের কারণ ও করনীয়

গর্ভাবস্থায় সাধারণ অবস্থার চেয়ে বেশি সাদা স্রাব হওয়া স্বাভাবিক। এতে ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। তবে কিছু ক্ষেত্রে সাদা স্রাব স্বাস্থ্যঝুঁকির কারণ হতে পারে। মেয়েদের যোনিপথ বা মাসিকের রাস্তা দিয়ে সাদা স্রাব যাওয়া একটি স্বাভাবিক ঘটনা। সাধারণত মাসিকের ঠিক আগে স্রাব যাওয়া বেড়ে যায়। এ ছাড়া গর্ভাবস্থায় সাদা স্রাবের পরিমাণ বেড়ে যাওয়াও বেশ স্বাভাবিক। তবে কিছু ক্ষেত্রে অস্বাভাবিক সাদা স্রাব হতে পারে।

গর্ভাবস্থায় সাদা স্রাবের কারণ

১. অতিরিক্ত পরিমাণে সাদাস্রাব হওয়া, দূর্গন্ধযুক্ত হওয়া এবং যৌনাঙ্গে চুলকানি বা অন্যান্য উপসর্গ দেখা দেওয়া।

২. তলপেট ও যোনিতে ব্যথা হতে পারে।

৩ . মুখমন্ডলের রক্তহীনতার ভাব

৪ .উদরাময় ও কোষ্ঠকাঠিন্য পর্যায়ক্রমে দেখা দেয়।

৫. শরীর খুব রোগা বা কৃশ হয়। অনেক সময় অাবার রোগী মোটা হয়ে পরে।

৬.তলপেট ভারী, প্রস্রাব অল্প পরিমাণে হয়, তলপেটে চাপ দিলেই ব্যথা অনুভব হয়।

৭. কোষ্ঠকাঠিন্য, মাথাধরা,পেট ফাঁপা।

গর্ভাবস্থায় স্বাভাবিক সাদা স্রাব

গর্ভাবস্থায় প্রায় সবারই সাদা স্রাবের পরিমাণ বেড়ে যায়। এই বাড়তি সাদা স্রাব জীবাণুকে যোনিপথ বা মাসিকের রাস্তা থেকে জরায়ুতে উঠে আসতে বাধা দেয়। ফলে গর্ভের সন্তান ইনফেকশন থেকে রক্ষা পায়। গর্ভাবস্থার শেষের দিকে সাদা স্রাবের পরিমাণ আরও বেড়ে যায়।

গর্ভাবস্থার একেবারে শেষ সপ্তাহের দিকে স্রাব জেলির মতো আঠালো হতে পারে। এসময়ে স্রাবের রঙ হয় গোলাপী। এই স্রাবকে ডাক্তারি ভাষায় ‘শো’ বলা হয়।

জরায়ুমুখে থাকা আঠালো পদার্থ বা মিউকাস যোনিপথ দিয়ে বের হয়ে আসার ফলে এই ‘শো’ দেখা যায়। এর মাধ্যমে বোঝা যায় যে গর্ভবতী নারীর দেহ সন্তান প্রসবের প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করছে। প্রসব বেদনা শুরু হওয়ার ঠিক আগের কয়েকদিন অল্প অল্প করে এরকম ‘শো’ দেখা যেতে পারে।

গর্ভাবস্থায় যে ধরনের সাদা স্রাব স্বাস্থ্যঝুঁকির কারণ

স্বাভাবিক সাদা স্রাব পাতলা, স্বচ্ছ ও বর্ণহীন অথবা দুধের মতো সাদা হয়। এতে কোনো দুর্গন্ধ থাকে না।

তবে সাদা স্রাবের সাথে নিচের পাঁচটি লক্ষণ দেখা দিলে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া জরুরি—

১.অস্বাভাবিক গন্ধ কিংবা দুর্গন্ধযুক্ত স্রাব

২.সবুজ, হলুদ, লালচে অথবা ধূসর রঙের স্রাব

৩.যোনিপথের আশেপাশে ব্যথা অথবা চুলকানি

৪.প্রস্রাবের সময়ে ব্যথা ও জ্বালাপোড়া হওয়া

৫.যৌনাঙ্গে জ্বালাপোড়া হওয়া, লালচে হয়ে যাওয়া কিংবা চুলকানো

এগুলো যোনিপথে ইনফেকশনের লক্ষণ হতে পারে।

গর্ভাবস্থায় ইনফেকশন

গর্ভাবস্থায় যোনিপথে ফাঙ্গাল ইনফেকশন হলে অস্বাভাবিক ধরনের সাদা স্রাব হতে পারে। এটি অনেকের কাছে ‘ঈস্ট ইনফেকশন’ নামেও পরিচিত। এক্ষেত্রে নিচের লক্ষণগুলো দেখা যায়—

অতিরিক্ত পরিমাণে সাদা স্রাব যাওয়া। এই স্রাব দেখতে দই অথবা পনিরের মতো এবং চাকা চাকা হয়। তবে সাধারণত কোনো গন্ধ থাকে না

যোনিপথের আশেপাশে প্রচুর চুলকানি ও জ্বালাপোড়া হওয়া

প্রস্রাব ও সহবাসের সময়ে ব্যথা কিংবা অস্বস্তি হওয়া

গর্ভাবস্থায় সাদা স্রাবের করনীয়

সহজ কিছু উপদেশ মেনে চলার মাধ্যমে ঘরোয়াভাবেই এই ধরনের ইনফেকশন প্রতিরোধ করা যায়। যেমন—

সুতি কাপড়ের ঢিলেঢালা অন্তর্বাস পরা

খুব টাইট বা আঁটসাঁট অন্তর্বাস ও পায়জামা না পরা

যৌনাঙ্গ শুকনো ও পরিষ্কার রাখা

যোনিপথে সুগন্ধি সাবানের ব্যবহার এড়িয়ে চলা

তথ্যসূত্র: সহায় হেলথ https://shohay.health/conditions/vaginal-discharge-during-pregnancy