দাঁতের কালো দাগ দূর করার উপায় - Ways to remove black stains on teeth
black stains on teeth

দাঁতের কালো দাগ দূর করার উপায় - Ways to remove black stains on teeth

দাঁতে কালো দাগের প্রধানতম কারণ দন্তমল বা ডেন্টাল প্ল্যাক। আমরা যা খাই, তার কিছু কণা দাঁতের ফাঁকে বা ওপরে জমে থাকে; পরে এগুলো শক্ত আবরণে পরিণত হয়। একে বলে দন্তমল। এই জমে থাকা খাদ্যকণা, ময়লা ইত্যাদি দাঁতের ওপর ও ফাঁকে কালো দাগ তৈরি করে। এ ছাড়া পান, সুপারি, জর্দা, তামাক বা ধূমপান দাঁতে কালো দাগ তৈরির জন্য দায়ী।

দন্তমলের কারণে হয় মাড়ির প্রদাহ ও সংক্রমণ। দন্তক্ষয়ের ঝুঁকি বাড়ে, মুখে দুর্গন্ধ হয়। তাই নিয়মিত স্কেলিংয়ের মাধ্যমে দন্তমল দূর করা উচিত। আবার দাঁতে ফাঁক বা ক্ষয় থাকলে ময়লা বা খাদ্যকণা জমে বেশি। তাই ফাঁক পূরণে ডেন্টাল ফিলিং করে নেওয়া উচিত।

দাঁতের কালো দাগ দূর করার ঘরোয়া সমাধান

খুব সহজেই কিছু ঘরোয়া সমাধানের মাধ্যমে দাঁতের কালো দাগ দূর করা যায়। যেমন-

১.নারকেল তেল আপনার দাত পরিষ্কার করতে সাহায্য করতে পারে। এক চামচ নারতেল তেল মুখের মধ্যে দিয়ে পাঁচ মিনিট দাঁত ব্রাশ করুন। এরপর কুলি করে ফেলুন। কিছুক্ষন পরেই এর ফলাফল দেখতে পাবেন। দাঁত হয়ে উঠবে ঝকঝকে।

২.আপেল সিডার ভিনেগারে এসিটিক এসিড, পটাশিয়াম এবং ম্যাগনেশিয়াম থাকে যা খারাপ ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করে এবং দাঁতে জমে থাকা প্লেগ বিনষ্ট করে। এছাড়া এতে থাকা পটাশিয়াম দাঁতের কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে। কয়েক ফোটা আপেল সিডার ভিনেগার দাঁতে লাগিয়ে দুই মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। এতে দাঁত হয়ে উঠবে সুন্দর এবং পরিষ্কার।

৩.লেবুর খোসা দিয়ে খুব সহজেই দাঁত পরিষ্কার রাখা যায়। এক টুকরা লেবুর খোসা দিয়ে দাঁত ভালভাবে ঘষুন। তারপর কুলি করে ফেলুন। দেখুন দাঁতের উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে। 

৪.বেকিং সোডার সাহায্যেও দাঁত পরিষ্কার করা যায়। পানিতে সামান্য পরিমানে বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন। এরপর মিশ্রণটি দাঁতে লাগিয়ে এক মিনিট ভালভাবে ব্রাশ করুন। তারপর ভাল করে কুলি করে ফেলুন। এতেও দাঁত হয়ে উঠবে ঝকঝকে ও সুন্দর। 

৫.দাঁতের কালো দাগ দূর করার জন্য আপনাকে অবশ্যই প্রতিদিন দুইবার দাঁত ব্রাশ করতে হবে যদি এরপরও আপনার দাঁতের কালো দাগ দূর না হয় তাহলে অবশ্যই ডেন্টিস্টের কাছে গিয়ে আপনার চিকিৎসা করাতে হবে। কাল দাঁতকে চিকিৎসার মাধ্যমে সম্পন্ন সাদা করে নেওয়া সম্ভব।

৬.স্কেলিং করলে দাঁতের কালো ভাব চলে যায় ঠিকই, কিন্তু বেশি স্কেলিং করা ঠিক নয়। বছরে কতবার স্কেলিং করা যাবে এ বিষয়ে ডক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। এছাড়া একটি পান পাতা নিয়ে তাতে সরিষার তেল লাগিয়ে নিন। এরপর মোমবাতির আগুনে পান পাতা গরম করে, দাঁতে ভালো করে ঘষুন। এবার ব্রাশ দিয়ে ভালো করে ঘষে নিন। এভাবে কয়েকবার করলেই দাগ চলে যাবে। 

দাঁত সুন্দর ও সাদা রাখতে কিছু বিষয়ে সচেতনতা দরকার। যেমন-

দিনে অন্তত দুবার ভালো করে বেশ কিছুক্ষণ ধরে দাঁত ব্রাশ করুন।

ব্রাশ করার আগে ডেন্টাল ফ্লস বা সুতা দিয়ে দাঁতের ফাঁকগুলো পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত করুন।

জীবাণু দূর করে এমন মাউথওয়াশ দিয়ে মুখ কুলকুচি করুন রাতে।

রোজ কোনো শক্ত ফল যেমন পেয়ারা, আমড়া, আপেল ইত্যাদি দাঁত দিয়ে কামড়ে খান। তাজা শাক-সবজি যেমন গাজর, শসা, টমেটো, লেবু ইত্যাদিও দাঁত সুরক্ষার জন্য ভালো।

বছরে অন্তত দুবার দন্তমল দূর করার জন্য ডেন্টাল স্কেলিং করা উচিত।

তথ্যসূত্র : টামইস অফ ইণ্ডিয়া