বিয়ের দাবীতে বিষের বোতল নিয়ে  প্রেমিকের বাড়িতে কিশোরীর অনশন
প্রেমিকের বাড়িতে অনশনরত কিশোরী


চরফ্যাসনের শশীভূষণ থানার এওয়াজপুর ইউনিয়নে বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে বিষের বোতল হাতে নিয়ে কিশোরী প্রেমিকার অনশনের খবর পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার বিকালে ওই কিশোরী বোরহান উদ্দিন উপজেলার নিজ বাড়ি থেকে এওয়াজপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডের জুলফিকার আলীর ছেলে প্রেমিক  হিজবুল্লাহের বাড়িতে অবস্থান নিলে এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। পরে খবর পেয়ে রাতে শশীভূষণ থানা পুলিশ কিশোরীকে উদ্ধার করেন। বুধবার দুপুরে কিশোরীকে দুই পরিবারের মধ্যস্থায় তার পরিবারের জিম্মায় দেয়া হয়েছে বলে উপ-পরিদর্শক হানিফ জানিয়েছেন। অনশনরত কিশোরী ভোলার বোহানউদ্দিন উপজেলার জহিরুল ইসলামের মেয়ে ও একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীতে পড়–য়া ছাত্রী বলে জানাগেছে।
স্থানীয়রা ও পুলিশ জানায়,কিশোরী শশীভূষণের এওয়াজপুর ইউনিয়নে তার খালার বাড়িতে বেড়াতে গেলে যুবক হিজবুল্লাহর সাথে তার পরিচয় হয়। পরিচয়ের সুত্র ধরে তাদের মধ্যে প্রেম সম্পর্ক গড়ে উঠে। দুই বছর যুবক হিজবুল্লাহর সাথে তার মোবাইল ফোনে  প্রেম। বিয়ের প্রতিশ্রæতিতে তাদের একাধিকবার দেখা হয়। কিশোরী তার খালার বাড়িতে এসে প্রেমিক হিজবুল্লাহর সাথে দেখা করতেন তারা। সম্প্রতি সময়ে কিশোরী বিয়ের জন্য চাপ দিলে প্রেমিক হিজবুল্লাহ তার মোবাইল ফোন বন্ধ করে দেয়। প্রেমিক হিজবুল্লাহর মোবাইল ফোন বন্ধ এবং বিয়ের প্রতিশ্রæতিকে সটকে পড়ায় মঙ্গলবার বিকালে কিশোরী বিয়ের দাবীতে প্রেমিক হিজবুল্লাহর বাড়িতে বিষের বোতল হাতে নিয়ে অনশন শুরু করেন। খবর পেয়ে পুলিশ অনশনরত কিশোরীরকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যান।
কিশোরী জানান, প্রেমিক হিজবুল্লাহর সাথে তার দুই বছরের প্রেম। বিয়ের প্রতিশ্রæতিতে তাদের একাধিক বার  দেখা হয়। প্রেমিক হিজবুল্লাহকে বিয়ের কথা বলা হলে  কয়েকদিন যাবত প্রেমিক  তার মোবাইল বন্ধ করে দেন। তাই তিনি বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়িতে বিষের বোতল নিয়ে অবস্থান নেন।
শশীভূষণ থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান পাটোয়ারী জানান, অনশনরত ওই কিশোরী অপ্রাপ্ত বয়সের হওয়ায় দুই পরিবারে মধ্যস্থতায় কিশোরীকে তার পরিবারের জিম্মায় দেয়া হয়েছে।


পরবর্তী খবর পড়ুন : চরফ্যাসনে পরকীয়া প্রেমিককে গণধোলাই শেষে পুলিশে দিলেন এলাকাবাসী