চরফ্যাসনে জমি বিরোধ জের ধরে প্রবাসীর স্ত্রীকে মারধর
আহত প্রবাসীর স্ত্রী


চরফ্যাসনের আসলামপুর ইউনিয়নে জমি বিরোধের জের ধরে রাহিমা (৩৮) নামের এক সৌদি প্রবাসীর স্ত্রীকে মারধর করে হাত ভেঙে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে তারই ভাশুরের পুত্র শামিম ও মোঃ দিপু ও তার ঝা হাজেরার বিরুদ্ধে। শুক্রবার দুপুরে ওই ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডেও আলীগাও গ্রামের তার নিজ বাড়িতে মারধরের ঘটনা ঘটে।স্বাজনরা আহত প্রবাসীর স্ত্রীকে উদ্ধার করে চরফ্যাসন হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। এঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে আহত গৃহবধু রাহিমা বেগম জানিয়েছেন। চিকিৎসাধীন রাহিমা জানান, তার স্বামী অনেক বছর যাবত সৌদি আরবে অবস্থান করছেন। প্রবাসে থেকেই তিনি তার বসত বাড়ির অপর ওয়ারিশদের কাছ থেকে ৫৬ শতাংশ জমি খরিদ করে বসত ঘর উত্তোলন করে ভোগ দখলে আছেন। সম্প্রতি সময়ে ভাশুর সামুদ্দিন তার স্বামী প্রবাসে থাকার সুযোগে তার স্বামীর খরিদা ১৬ শতাংশ জমি জবর দখল করেন নেন। এবং তার শশুরের ওয়ারিশি ১২শতাংশ জমি ও জবর দখল করে নেন।  এনিয়ে স্থানীয় ভাবে শালিশ চলমান আছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে তিনি ওই বিরোধ জমির সিমানা দিয়ে প্রতিবেশীর বাড়িতে যাওয়ার পথে তার ভাশুরের ছেলে শামিম ও মোঃ দিপু তার গতিরোধ করে গালমন্দ করতে থাকেন । এসময়ে তিনি প্রতিবাদ করলে ভাশুরের ছেলে শামিম ও দিপু তার ওপর আর্তকিত হামলা চালায় লাঠি দিয়ে পিটিয়ে ডান হাত ভেঙে দেয়। এবং মুখে ও ঘাড়ে আঘাত করে।পরিহিত  কাপড় খুলে ফেলে উলঙ্গ করে দেন। এসময় তিনি মাটিতে লুটে  পরলে তার গালায় থাকা ওড়না ছিনিয়ে নিয়ে গলায়  পেঁচিয়ে তাকে স্বাসরোধ করার চেষ্টা করেন। এসময়ে প্রতিবেশীরা তাকে হামালাকারীদের কবল থেকে তাকে উদ্ধার করে দুপুরে চরফ্যাসন হাসপাতালে ভর্তি করেন।
অভিযুক্ত শামিমের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য জানাযায়নি। তবে শামিমের  মা হাজেরা জানান, দেবরের  স্ত্রীও  তার তার সন্তানরা ছেলেদেরকে মারধর করেছে।
চরফ্যাসন থানার ওসি মনির হোসেন মিয়া জানান, এঘটনায় কোন অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।