বড় টিকিপানচিল-Greater crested tern
Greater crested tern

বড় টিকিপানচিল-Greater crested tern

বড় টিকিপানচিল ল্যারিডে পরিবারের একটি পানচিল যা গ্রীষ্মমন্ডলীয় এবং উপক্রান্তীয় ওল্ড ওয়ার্ল্ডের উপকূলরেখা এবং দ্বীপগুলিতে ঘন উপনিবেশে বাসা বাঁধে।

ইংরেজি নাম: Greater crested tern,crested tern or swift tern

বৈজ্ঞানিক নাম: Thalasseus bergii 

বর্ণনাঃ

বড় টিকিপানচিল হলদে ঠোঁট ও কালচে ডানার সামুদ্রিক পাখি। দেহের দৈর্ঘ্য ৫৩ সেন্টিমিটার আর ডানা ৩৬ সেন্টিমিটার। অপ্রাপ্তবয়স্ক পাখির দেহের সামান্য কিছু অংশ ছাড়া পিঠ কালচে ধূসর, দেহের নিচের দিক সাদা। প্রজননকালে ঠোঁটের ওপরের অংশের কপাল সাদা, পুরো মাথার চাঁদি ও ঘাড়ের পেছনটা কালো দেখায়। মাথার পেছনে অসমান কালো ঝুঁটি থাকে। প্রজননের সময় ছাড়া মাথার চাঁদিতে সাদা তিল থাকে। লম্বা ডানা ও খাটো লেজটির মাঝামাঝি অংশ ধূসর ঠোঁট হালকা পীত থেকে সবুজে লেবু-হলুদ। চোখ কালচে বাদামি। পা ও পায়ের পাতায় কিছুটা বাদামি-কালোর মিশ্রণ। ছেলে ও মেয়ে পাখির চেহারা অভিন্ন।

স্বভাবঃ

বড় টিকিপানচিল উপকূল, মোহনা ও সাগরের চরে বিচরণ করে। তবে তীর থেকে দূরে থাকতে পছন্দ করে। সচরাচর ছোট বিচ্ছিন্ন দলে থাকে। প্রায়ই বাংলা টিকিপানচিলের সঙ্গে যোগ দেয়। পানির সামান্য ওপরে ওড়ে। বাতাসে ভেসে বেড়িয়ে অথবা পানিতে ঝাঁপ দিয়ে এরা খাবার সংগ্রহ করে। খাওয়ার সময় কর্কশ গলায় ডাকে। এরা দীর্ঘ সময় উড়ে বেড়াতে অভ্যস্ত এবং প্রায়ই গভীর সাগরের ওপর উড়তে থাকে। সেন্ট মার্টিন থেকে শাহপরীর দ্বীপ ও সোনাদিয়া দ্বীপে এরা যাওয়া-আসা করে।

প্রজননঃ

এপ্রিল-জুন মাসে সাগরের তীর থেকে দূরের দ্বীপে বালুর প্রাকৃতিক গর্তে কিংবা মৃত প্রবালের মধ্যে বাসা বানিয়ে ডিম পাড়ে। ডিম সাদা থেকে হালকা পীত বর্ণের বা স্যামন বেগুনি। সংখ্যায় এক-দুটি। ২১-২৩ দিনে ডিম ফুটে ছানা বের হয়। 

খাদ্য তালিকাঃ

খাদ্যতালিকায় আছে ছোট মাছ ও চিংড়ি।

বিস্তৃতিঃ

বড় টিকিপানচিল বাংলাদেশের বিরল পরিযায়ী পাখি। শীতে চট্টগ্রাম বিভাগের উপকূলেও এদের দেখা মেলে। এর পাঁচটি উপ-প্রজাতি ভারত মহাসাগরের চারপাশের দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে মধ্য প্রশান্ত মহাসাগর এবং অস্ট্রেলিয়া পর্যন্ত অঞ্চলে বংশবৃদ্ধি করে।

অবস্থাঃ

বিশ্বে এদের অবস্থান সন্তোষজনক নয় বিধায় আইইউসিএন প্রজাতিটিকে লাল তালিকাভুক্ত করেছে।