দাগিলেজ গাছআঁচড়া-Bar-tailed treecreeper
Bar-tailed treecreeper

দাগিলেজ গাছআঁচড়া-Bar-tailed treecreeper

দাগিলেজ গাছআঁচড়া বা বাঁকাঠোঁট কীটকুড়ানী Certhiidae (সের্থিডি) গোত্র বা পরিবারের অন্তর্গত Certhia (সের্থিয়া) গণের অন্তর্গত এক প্রজাতির ছোট বৃক্ষচর পাখি। এ প্রজাতিটির মোট চারটি উপপ্রজাতির সন্ধান পাওয়া গেছে। এরা হল: 1.C. h. taeniura,2.C. h. himalayana,3.C. h. yunnanensis,4.C. h. ripponi

ইংরেজি নাম: Bar-tailed treecreeper

বৈজ্ঞানিক নাম: Certhia himalayana

বর্ণনাঃ

দাগিলেজ গাছআঁচড়ার দৈর্ঘ্য ১৪ সেন্টিমিটার। ওজন ৮ গ্রাম। গায়ের রং বাদামি-সাদা-লালচে ডোরাকাটা। ডানার প্রান্ত পালক ধূসর কালো। লেজ ডোরাকাটা। দেহতল হালকা বাদামি-সাদা। ঠোঁট লম্বা বাঁকানো, কালচে রঙের। পা কালচে।

স্বভাবঃ

এরা একাকী, জোড়ায় কিংবা ছোট দলে বিচরণ করে। হিংস নয়। অত্যন্ত চঞ্চল স্বভাবের পাখি। কাঠঠোকরা পাখির মতো গাছের খাড়া কাণ্ডে খুব দ্রুত হেঁটে উঠতে পারে। সারাদিন গাছের কাণ্ডে ঠোঁট চালিয়ে কীট-পতঙ্গ খুঁজে বেড়ায়। গাছ-গাছালিতে বিচরণকালে অনেক সময় ওদেরকে শনাক্ত করা কঠিন হয়ে পড়ে। কারণ ওদের গায়ের বর্ণ গাছের শুকনো ডালপালার সঙ্গে মিশে যায়, যার ফলে এ ধরনের ভ্রম তৈরি হয়।

প্রজননঃ  

প্রজনন মৌসুম এপ্রিল থেকে জুন। অঞ্চলভেদে প্রজনন মৌসুমের হেরফের রয়েছে। বাসা বানাতে উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করে শৈবাল, তন্তু, শুকনো ঘাস, পালক ইত্যাদি। ডিম পাড়ে ৪-৬টি। ডিম ফুটতে সময় লাগে ১৩-১৭ দিন।

খাদ্য তালিকাঃ

এরা সাধারণত কীট-পতঙ্গ, পোকামাকড়, মাকড়সা ইত্যাদি খেয়ে থাকে। 

বিস্তৃতিঃ

বাংলাদেশ ছাড়া ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, আফগানিস্তান, মায়ানমার, কাজাখস্তান, কিরগিজিস্তান, উজবেকিস্তান, চীন, তাজিকিস্তান ও তুর্কমেনিস্তান এদের মূল আবাস।

অবস্থাঃ

সারা পৃথিবীতে প্রায় ৬ লক্ষ ৯১ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এরা বিস্তৃত। বিগত কয়েক দশক ধরে এদের সংখ্যা ক্রমেই কমছে, তবে আশঙ্কাজনক পর্যায়ে যেয়ে পৌঁছেনি। সেকারণে আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত বলে ঘোষণা করেছে। বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতিটিকে সংরক্ষিত ঘোষণা করা হয় নি।