ডাহুক
white-breasted-waterhen

white-breasted-waterhen

ডাহুক

ডাহুক, ডাইক, পানপায়রা বা ধলাবুক ডাহুক রেলিডি গোত্র বা পরিবারের অন্তর্ভুক্ত Amaurornis গণের অন্তর্গত মাঝারি আকৃতির একটি পাখি।

ইংরেজি নাম:white-breasted-waterhen

বৈজ্ঞানিক নাম: Amaurornis phoenicurus

বর্ণনাঃ

লম্বায় ৩২-৩৩ সেন্টিমিটার। শক্ত মজবুত গড়নের ঠোঁটের বর্ণ সবুজ। ডাহুকের লেজ ছোট, লেজের নিচের অংশ লালচে আভা সমৃদ্ধ। পিঠের রং ধূসর থেকে খয়েরি-কালো, মাথা ও বুক সাদা। পা লম্বা। ঠোঁট হলুদ, ঠোঁটের উপরে লাল রঙের একটি ছোট দাগ আছে।দেহ কালচে। মুখমণ্ডল, গলা, বুক ও পেট সম্পূর্ণ সাদা। 

স্বভাবঃ

পুকুর, খাল, জলাভূমি, বিল, নদীর গোপন লুকানো জায়গা বসবাসের জন্য এদের খুব প্রিয়। পায়ের নখগুলো লম্বা লম্বা, ফলে পদ্ম ও শাপলা পাতায় দিব্যি দাঁড়িয়ে থাকতে পারে এবং কচুরিপানার ওপর ছোটাছুটি করতে পারে। যখন সঙ্গীর খোঁজ না পায়, দিনরাত ডাকতে ডাকতে গলা চিরে রক্ত উঠে একসময় ঢলে পড়ে মৃত্যুর কোলে। 

বিস্তৃতিঃ

সারা পৃথিবীতে এক বিশাল এলাকা জুড়ে এরা বিস্তৃত, প্রায় ৮৩ লক্ষ ৪০ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে এদের আবাস। পাখিটি বাংলাদেশ, ভারত ছাড়াও দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশে দেখা যায়।

প্রজননঃ

জুন থেকে সেপ্টেম্বর এদের প্রজননকাল। মাটিতে ঝোপের তলায় এরা বাসা বাঁধে। ৬-৭টি ডিম পাড়ে এরা। ডিমের রং ফিকে হলুদ বা গোলাপি মেশানো সাদা। ডাহুক-ডাহুকী দুজন মিলেই ডিমে তা দেয়। বাচ্চাদের রং সব সময় হয় কালো।  ডিম ফুটতে সময় লাগে ১৮-২০ দিন।

খাদ্য তালিকাঃ

জলজ পোকা-মাকড়, উদ্ভিদের কচি ডগা, শ্যাওলা,ধান,ভাত এদের প্রিয় খাবার।

অবস্থাঃ

আই. ইউ. সি. এন. এই প্রজাতিটিকে ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত বলে ঘোষণা করেছে। বাংলাদেশের বন্যপ্রাণী আইনে এ প্রজাতিটিকে সংরক্ষিত ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু আমাদের অসতর্কতার কারণে হারিয়ে যাচ্ছে পাখিটি।


পরবর্তী খবর পড়ুন : ঢাকা থেকে ময়মনসিংহ ট্রেনের সময়সূচী