দুধরাজ পাখি
Asian Paradise Flycatcher

Asian Paradise Flycatcher

দুধরাজ পাখি

এশিয়া মহাদেশে এই স্বর্গীয় পাখির বাস। দুধরাজ পাখি ভীষন সাহসী পাখি। পাখিটিকে কেউ বলে দুধরাজ কেউ বলে শাহ বুলবুল; আবার কেউ রাজবুলবুলও বলে।

ইংরেজি নাম: Asian Paradise Flycatcher

বৈজ্ঞানিক নাম: Terpsiphone paradisi 

বর্ণনাঃ

দুধরাজ পাখি প্রায় ১৯-২২ সেন্টিমিটার লম্বা হয়ে থাকে। আর এদের লেজের পালক দুটির দৈর্ঘ্য হয় ৩০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত।  সাধারণত এই লম্বা লেজের অধিকারী হতে পুরুষ পাখিদের তিন বছর মত সময় অতিবাহিত করতে হয়।এদের মাথা চকচকে কালো বর্ণের হয়। মাথার শীর্ষে থাকে বুলবুলি পাখির মত চোখা ঝুঁটি। ঠোঁটের রঙ চকচকে কালো ও এটি বেশ শক্ত। কমবয়সী পুরুষ পাখি দেখতে স্ত্রী পাখির মতই হয় তবে এদের গলার রঙ কালো হয়ে থাকে। তাছাড়া চোখের চারপাশে নীল রঙের বলয় দেখা যায় এদের। 

স্বভাবঃ

দুধরাজ পাখিরা গভীর বন-জঙ্গলে বাস করে। এরা পরিযায়ী এবং শীতকাল কাটায় ট্রপিক্যাল এশিয়ায়। এরা বেশ কোলাহলপ্রিয় পাখি। এরা তীক্ষ্ণ স্বরে ডাকে। প্রজনন মৌসুমে মোলায়েম সুরে ডাকাডাকি করে। এরা পাঁচ ধরনের সুরে ডাকতে পারে। কোনোটিই শ্রুতিমধুর নয়। স্বভাবে চঞ্চল। সুন্দরবনের বনমোরগ ওদের বন্ধু। সর্বদাই বনমোরগ-মুরগীর সঙ্গে ওঠবস করে। কারণ বনমোরগ ওদের শক্ত ঠোঁট দিয়ে মাটি খুঁচিয়ে খাবার সংগ্রহ করার সময় পোকামাকড় উঠে এলে তা খায় দুধরাজ। 

প্রজননঃ

এদের প্রজনন মৌসুম মে - জুলাই মাস পর্যন্ত। গাছের শাখায় শুকনো ঘাস,ডালপালা ও মাকড়সার জালের সমন্বয়ে এরা বাসা বানায়।বাসা তৈরিতে পুরুষ-স্ত্রী উভয় পাখিই অংশ নেয়। সুন্দর ছোট কাপের মত দেখতে বাসায় এরা ৩ থেকে ৪ টি ডিম পাড়ে। এদের বাসা বেশ পরিষ্কার হয়। স্ত্রী পাখি ডিম পাড়ার পর পুরুষ ও স্ত্রী পাখি পালাক্রমে সেই ডিমে তা দিয়ে থাকে। ডিমে তা দেয়া চলতে থাকে প্রায় ৯-১২ দিন। ডিম ফুটে বাচ্চা বের হলে উভয় পাখি বাচ্চাদের খাওয়ানো এবং লালন পালনে সমান ভূমিকা রাখে। এরা অনেক সময় প্রজননরত ফিঙ্গে পাখির জোড়ার আশে পাশে বাসা তৈরি করে । এতে করে এরা শিকারির হাত থেকে সুরক্ষিত থাকে। প্রায় ২১ থেকে ২৩ দিনের মাথায় ডিম ফুটে ছানা বের হয়। 

খাদ্য তালিকাঃ

প্রজাপতি, ফড়িংসহ উড়ন্ত কীট-পতঙ্গ। দুধরাজের প্রিয় খাবার কীটপতঙ্গ।

অবস্থাঃ

আইইউসিএন (IUCN) এর তথ্যমতে পাখিটি এখনো আশঙ্কামুক্ত রয়েছে।


পরবর্তী খবর পড়ুন : বড় খোঁপাডুবুরি