শেখ রেহানা এর জীবনী - Biography of Sheikh Rehana
Sheikh Rehana

শেখ রেহানা -Sheikh Rehana

শেখ রেহানা ১৯৫৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জ জেলার টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি বাংলাদেশের জাতির জনক এবং সাবেক রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠা কন্যা। তিনি বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একমাত্র বোন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকরা যখন বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের নির্মমভাবে হত্যা করে, তখন তিনি বড় বোন শেখ হাসিনার সঙ্গে জার্মানির কার্লসরুইয়ে অবস্থান করায় প্রাণে বেঁচে যান। অতঃপর সেখান থেকে ভারতে চলে যান দুই বোন। শেখ রেহানা ভারতের পশ্চিমবঙ্গে শান্তিনিকেতনে অধ্যয়নের জন্য ভর্তি হলেও পশ্চিমবঙ্গ সরকার তাকে নিরাপত্তা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় যুক্তরাজ্যে বঙ্গবন্ধুর ফুপাতো ভাই মোমিনুল হক খোকা চাচা ও ফুপা জেনারেল মোস্তাফিজ থাকায় সেখানে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু বিমানের ভাড়া না থাকায় দুশ্চিন্তায় পড়েন তিনি। ভারতের তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী বিষয়টি জানতে পেরে তিনি টিকিটের টাকা শেখ রেহানার কাছে পাঠালে তিনি তাদের প্রিয় খোকা চাচার কাছে লন্ডনে চলে যান। পরবর্তী সময়ে রাজনৈতিক আশ্রয় পাওয়ার পর থেকে যুক্তরাজ্যে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু তিনি।

পারিবারিক জীবন

ব্যক্তিগতভাবে এখনো কর্মজীবি হিসেবে জীবন কাটান শেখ রেহানা। শেখ রেহানার স্বামী শফিক আহমেদ সিদ্দিক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং ও ইনফরমেশন সিস্টেমস বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক। তিন সন্তানের জননী তিনি। ছেলে রেদওয়ান মুজিব সিদ্দিক ববি। দুই কন্যা টিউলিপ সিদ্দিকআজমিনা সিদ্দিক। তন্মধ্যে, টিউলিপ সিদ্দিক লন্ডনের ক্যামডেন কাউন্সিলের লেবার পার্টির পক্ষ নিয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন।

বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ তনয়া শেখ রেহানা। একজন নিভৃতচারী। তিনি ক্ষমতার কেন্দ্রবিন্দুতে থেকেও অতিসাধারণ। দেশের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান হয়েও সক্রিয় রাজনীতির সম্মুখ সারিতে আসেননি তিনি। রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হওয়ার ব্যাপক সুযোগ থাকা সত্ত্বেও নিজেকে আড়াল রাখার মধ্য দিয়ে তিনি বেছে নিয়েছেন নিভৃত গৃহকোণ। তার যে নির্মোহ জীবনাচারের পরিচয় পাওয়া যায়, তা অতুলনীয়। তিনি মূলধারার রাজনীতিতে কখনো যুক্ত হতে আগ্রহী নন। তবে তিনি রাজনীতিতে সম্পৃক্ত না হলেও জনহৈতিষী ও জনকল্যাণকর কাজে সর্বদা নিরলসভাবে অগ্রণী ভূমিকা রেখে আসছেন। শেখ রেহানা অসীম সাহস ও সক্ষমতার পরিচয় দেখিয়ে অনেক স্থানে সফলতার পরিচয় দিয়েছেন। পারিবারিক শিক্ষা, বিশেষ করে মায়ের দেওয়া শিক্ষা, ধৈর্য, সাহস, বিচক্ষণতা, অধ্যবসায়, ত্যাগ ও নির্লোভতা তার চলার পথকে সুগম করেছে।

সরকারী বাড়ী বরাদ্দ

২০০১ সালে তৎকালীন শেখ হাসিনা সরকার কর্তৃক বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ রেহানাকে ঢাকার ধানমন্ডির ৬ নম্বর রোডের ২১ নম্বর বাড়ীটি সরকারীভাবে বরাদ্দ দেয়া হয় এবং তিনি তা নগদ মূল্যে ক্রয় করেন। পরবর্তীতে ২০০৫ সালে খালেদা জিয়া'র নেতৃত্বাধীন চারদলীয় জোট সরকার তার বাড়ীর অধিকার কেড়ে নিয়ে সেখানে ধানমন্ডি থানা হিসেবে ব্যবহারের অনুমতি প্রদান করেন। ফলে বাড়ীর অধিকার ফিরে পাবার জন্যে ২০০৬ সালের ২৪ জানুয়ারি আইনি লড়াইয়ে নামেন তিনি। কিন্তু উৎসর্গ করার মানসিকতা থেকে তিনি আর রীট পরিচালনা করতে চান না বা বাড়ী ফেরত পেতে চান না বলে ৮ আগস্ট, ২০১১ তারিখের আবেদনে উল্লেখ করেন।