মন্দার ফুল

মন্দার গাছ

কাঁটা মান্দার হল বৃক্ষ জাতীয় সপুষ্পক উদ্ভিদ।এর (বৈজ্ঞানিক নাম: erythrina fusca

বাংলাদেশে গাছটি বরিশাল, পটুয়াখালী, ভোলা, বরগুনা, কক্সবাজার, নোয়াখালী ও গঙ্গার নিম্ন এলাকায় বেশি দেখা যায়। দক্ষিণাঞ্চল ছাড়াও এটি বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চলের একটি পরিচিত উদ্ভিদ।বাড়ির চারপাশে বেড়া দিতে, জ্বালানি কাঠ হিসেবে ও মাছের ঝাউ (পুকুর কিংবা নদীর অগভীর অংশে মাছ ধরার জন্য গাছের ডাল দিয়ে তৈরি আবাস) দেওয়ার কাজে এ গাছের ডাল ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও দেশলাই তৈরিতে এই গাছ ব্যবহৃত হয়। 

কাঁটা মান্দারগাছের কোনোটির কাণ্ডের গায়ে ঘন ও প্রচুর কাঁটা থাকে, আবার কোনোটির কাণ্ডে কাঁটার পরিমাণ কম। ফাল্গুন মাসে গায়ের গো-শালিক পাখি বাসা তৈরির জন্য এ গাছটিকে বেছে নেয়।

 কাঁটার ভয়ে গায়ের দুষ্ট ছেলের দল গাছে উঠতে পারে না, পাখিরাও সে ব্যাপারটি আঁচ করতে পেরেছে।ডাল কেটে লাগালেও গাছ হয়। স্বাদু জল ও জোয়ার-ভাটা এলাকায় ভালো জন্মে।

মন্দার ফুল

মান্দার ফুলের চাটনী:

পাকা তেঁতুল, সরিষার তেল ও মান্দারের লাল ফুল চটকিয়ে এক প্রকার চাটনি তৈরি করা হয়, যা বরিশাল এলাকায় ‘তেঁতুল বানানি’ নামে পরিচিত। কাঁটা মান্দার ফুল গ্রামের কিশোর-কিশোরীদের কাছে অতি প্রিয়। 

তথ্যসূত্র:উইকিপিডিয়া


পরবর্তী খবর পড়ুন : হাগড়া গাছের উপকারিতা

আপনার মতামত লিখুন :