কুমড়োর বিচি

১০০ গ্রাম কুমড়ার বিচি থেকে ৫৬০ ক্যালরি পাওয়া যায়, তার মানে ক্ষুধা মেটানোর কাজটা ভালোই পারে এ বস্তু। আর সামান্য এই খাবারে পুষ্টিও গিজগিজ করছে। প্রাকৃতিক পুষ্টি উপাদানের ‘পাওয়ার হাউস’ মিষ্টি কুমড়ার বিচিতে আছে ভিটামিন বি, ম্যাগনেশিয়াম, প্রোটিন ও আয়রনের মতো গুরুত্বপূর্ণ সব খাদ্য উপাদান।আমাদের দেহের ক্যান্সার প্রতিরোধক কোষ গঠন করে বিটা-ক্যারোটিন সমৃদ্ধ এই সবজি। রোগ প্রতিরোধ, চোখের যত্নে ও খাদ্য হজম ও ওজন কমাতেও মিষ্টি কুমড়ার রয়েছে অবদান।

কুমড়োর বিচির  উপকারিতা

ওজন কমাতে কুমড়ার বীজ

কুমড়ার বীজ শর্করার বিকল্প হওয়ায় ক্ষুধা তাড়াতাড়ি মেটায়। যা শরীরের ওজন কমাতে কার্যকর ভূমিকা পালন করে থাকে।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

কুমড়ার বিচিতে রয়েছে অধিক পরিমাণে জিংক, ফাইটোকেমিক্যাল যা রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সহায়তা করে থাকে। তাছাড়া এটি ভাইরাস এর সংক্রমন থেকেও রক্ষা করে।

হাড়ের সমস্যা নিরাময় করে

কুমড়ার বিচিতে রয়েছে অধিক পরিমাণে ম্যাগনেসিয়াম, ক্যালসিয়াম, জিঙ্ক যা অস্টিওপোরোসিসের মতো হাড়ের সমস্যা নিরাময়ে সাহায্য করে থাকে।

অনিদ্রা জনিত সমস্যা দুর করে

কুমড়ার বিচিতে রয়েছে সেরোটোনিন নামের রাসায়নিক উপাদান যা স্নায়ুতন্ত্রের চাপ কমিয়ে অনিদ্রা জনিত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

হার্ট সুস্থ্য রাখতে কুমড়ার বিচি

কুমড়োর বিচিতে আছে শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় চর্বি, ফাইবার এবং বিভিন্ন ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। হার্ট এবং মস্তিষ্ক সুস্থ্য রাখতে কুমড়ার বীজের ভূমিকা অপরিসীম। কুমড়ার বীজে রয়েছে গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাটি এসিড পলি আনস্যাচুরেটেড এবং মনো আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড যা হার্ট এবং মস্তিষ্কের সুস্থ্যতায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

চুল উজ্জ্বল ও ঘন করতে সাহায্য করে

কুমড়ার বিচিতে রয়েছে প্রচুর পরিমানে সালফার, জিংক, ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড, ভিটামিন এ, বি আর ভিটামিন-কে যা চুল ও মাথার ত্বকের জন্য দারুন উপকারী। চুল উজ্জ্বল ও ঘন করতে এই উপাদানগুলি সাহায্য করে থাকে।

রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে

ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য কুমড়ার বিচি অত্যন্ত উপকারী। এটি শরীরে নিয়মিত ইনসুলিন সরবরাহ করে যার ফলে রক্তে চিনির পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে। তাছাড়া বিচিতে থাকা ম্যাগনেসিয়াম রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।

কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ে কুমড়ার বিচি

কুমড়ার বীজে রয়েছে প্রচুর পরিমানে ফাইবার যা কোষ্ঠকাঠিন্য নিরাময়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। তাই মিষ্টি কুমড়ার বিচি ফেলে না দিয়ে আমাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় সংযুক্ত করি। তাহলে অনেক শারীরিক অসুস্থ্যতা জনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব।

চাল কুমড়ার বিচির উপকারিতা,লাউয়ের বিচির উপকারিতা,কুমড়োর বীজের উপকারিতা,লাউ বীজের উপকারিতা,কুমড়ো শাকের উপকারিতা,মিষ্টি কুমড়ার উপকারিতা,কুমড়োর উপকারিতা